আগামীকাল চুয়েটের ” শামসেন নাহার খাঁন হল”‘র শুভ উদ্বোধন

Wednesday, January 22nd, 2020
মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসাইন, রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) বিকাল ৩ টায় চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনির্মিত সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও দৃষ্টিনন্দন ‘শামসেন নাহার খাঁন হল’’টির প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে শুভ উদ্বোধন করবেন  গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনামন্ত্রী এম.এ. মান্নান, এমপি। এতে সভাপতিত্ব করবেন চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আালম।
জানা যায় , চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী শিল্প পরিবার এ.কে. খান ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে চুয়েটের গবেষণা ও সম্প্রসারণ দপ্তরের সহযোগিতায় নবনির্মিত আবাসিক ছাত্রী হল ‘শামসেন নাহার খান হল’-এর বাস্তবায়ন করা হয়েছে। প্রায় ১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রায় এক লক্ষ বর্গফুট আয়তনের ৬ তলা বিশিষ্ট (বেইসমেন্টসহ) চারদিকে সবুজ ঘাসে ঘেরা হলটি যেন স্থাপত্যশৈলীর এক অপূর্ব নিদর্শন। সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও দৃষ্টিনন্দন স্থাপত্যশৈলীর প্রয়োগে নির্মিত হলটিতে প্রায় ৫০০ জন ছাত্রীর আবাসনের সুবিধা রয়েছে।
অত্যাধুনিক ও পরিবেশবান্ধব স্থাপত্যশৈলী ও প্রযুক্তিতে নির্মিত এই আবাসিক ছাত্রী হলটির নকশা করেছেন চুয়েটের স্থাপত্য বিভাগের সহকারী অধ্যাপক স্থপতি বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস এবং স্থাপত্য বিভাগের সহকারী অধ্যাপক স্থপতি সজীব পাল।
হলের বেইসমেন্টে থাকছে ছাত্রীদের রান্নাঘর, ডাইনিং রুম, ক্যান্টিন, বাথরুম, কমন রুম ও টিভি রুম। গ্রাউন্ড ফ্লোরে ওয়েটিং রুম, প্রভোস্ট অফিস, এ.কে. খান গ্যালারি ও আবাসিক কক্ষ রয়েছে। দ্বিতীয় তলায় লাইব্রেরী, দুটি অফিস কক্ষ ও আবাসিক কক্ষ রয়েছে। তৃতীয় তলায় দুটি নামাজের কক্ষ ও আবাসিক কক্ষ এবং চতুর্থ ও পঞ্চম তলায় আবাসিক কক্ষ রয়েছে। এছাড়া রুফটপে দুটি সিঁড়ি রুম, হলের বাইরে দুটি খেলাধুলার ইনার কোর্ট এবং একটি নিরাপত্তা কক্ষ স্থাপন করা হয়েছে।
এ সম্পর্কে চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, ‘শিক্ষাবান্ধব বর্তমান সরকারের গতিশীল ও বিচক্ষণ নেতৃত্বের ফলে দেশে নারীদের উচ্চশিক্ষা ও গবেষণায় ব্যাপক আগ্রহের সঞ্চার হয়েছে।
সরকারের নির্দেশনা অনুসরণে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) কর্তৃপক্ষ নারীদের উচ্চশিক্ষা-গবেষণায় সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।
সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন সংস্থা/প্রতিষ্ঠানের কর্পোরেট সোশ্যাল রেসপন্সিবিলিটি ফান্ডের আওতায় চুয়েটেও আমরা বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণসহ নানা সুযোগ-সুবিধা গড়ে তোলার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছি।
চুয়েটের আহ্বানে সাড়া দিয়ে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী শিল্প পরিবার এ.কে. খান গ্রুপের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত এ.কে. খান ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে দৃষ্টিনন্দন একটি ছাত্রী হল র্নিমান করে দেয়ায় চুয়েট পরিবারের পক্ষ থেকে এ.কে.খান ফাউন্ডেশনের সম্মানিত সকল ট্রাস্টিসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি  ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।