ইচ্ছামতো ব্যায়াম

Thursday, November 21st, 2019
ইচ্ছামতো ব্যায়াম

ডেস্ক নিউজঃ শরীর ঠিক রাখতে পরিশ্রমের বিকল্প নেই। আর পরিশ্রমের জন্য চাই ব্যায়াম। কিন্তু বর্তমান সময়টা এমনই যে ব্যায়ামের জন্য সময় বের করা বড্ড কঠিন। আর রুটিন ধরে জিমে যাওয়াটা তো আরো কঠিন। আবার জিমে গেলেও একই ব্যায়াম বারবার করতে করতে ক্লান্ত হয়ে যাওয়াটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। একঘেয়েমি আসাটাও অস্বাভাবিক কিছু নয়। ব্যায়ামের এই একঘেয়েমি থেকে রক্ষা পেতে করতে পারেন ইচ্ছামতো কিছু ব্যায়াম।

প্রতিটি ব্যায়ামই কম সময়ে শেষ করতে হবে। একটি ব্যায়াম শেষ করেই শুরু করতে হবে অন্যটি। নানা ধরনের ব্যায়ামে শরীরের বিভিন্ন মাংসপেশির সঞ্চালন হয়। ফলে ফিটনেসেরও উন্নতি হয়। কার্ডিওভাসকুলার ব্যায়াম ধীরে ধীরে দীর্ঘক্ষণ করলে তেমন কোনো লাভ হয় না। ক্রসফিটে তাই কার্ডিও ব্যায়াম অল্প সময় দ্রুতগতিতে করতে হবে। যেমন—জোরে জোরে জগিং করা বা দৌড়ানো।

ক্রসফিট অনুশীলনের জন্য একটি তালিকা তৈরি করে নেওয়া ভালো। যেমন—ডেড লিফট, ক্লিন, স্কোয়াট, প্রেসি, সিঅ্যান্ডজি এবং স্ন্যাচের মতো অনুশীলন থাকার পাশাপাশি থাকবে পুল-আপস, ডিপস, রোপ ক্লাইম্ব, পুশ-আপস, প্রেসেস টু হ্যান্ড, ফ্লিন্স অ্যান্ড হোল্ডসের মতো জিমন্যাস্টিকসও। কোনটা আগে কোনটা পরে এটা না ভেবে যেকোনো একটি দিয়েই শুরু করুন। ক্রসফিট অনুশীলনটি এমনই। একটি শেষ করেই শুরু করুন অন্যটি। একেবারে নিজের ইচ্ছামতো। এমন অনুশীলনের ফলে শরীর যেকোনো পরিস্থিতির জন্য তৈরি হয়ে পড়ে। মজার ব্যাপার হচ্ছে এমন ব্যায়ামে আর একঘেয়েমি আসবে না। আর সঙ্গী হিসেবে যদি কেউ থাকে, তাহলে তার সঙ্গে প্রতিযোগিতায়ও নামা যেতে পারে। কে আগে শেষ করতে পারে, সেই প্রতিযোগিতায় অনুশীলনের মধ্যেও আনন্দ পাওয়া যাবে।

জিমের পাশাপাশি দৌড়, সাঁতার, রোয়িংয়ের মতো খেলায়ও অংশ নিতে হবে। শুধু ব্যায়াম করলে হবে না, খাবার তালিকায়ও নজর রাখতে হবে। শাক-সবজি, চর্বি ছাড়া মাংস, বাদাম ও অল্প শর্করাজাতীয় খাবার খেতে হবে। তেল-মসলা বেশি খাওয়া যাবে না। ভাত, রুটি, আলু, মিষ্টি ও বেকারিতে তৈরি খাবার এড়িয়ে চলা ভালো।