চোরাচালানীদের হামলায় ৪ বিজিবি সদস্য আহত, গুলিবর্ষণ

Thursday, November 7th, 2019
মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় চোরাচালানীদের হামলায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) ৪ সদস্য আহত হয়েছেন। তারা শ্রীমঙ্গলস্থ বিজিবির ৪৬ ব্যাটালিয়নের সদর দফতরে চিকিৎসাধীন আছেন।বুধবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের সীমান্ত এলাকা ইটারঘাট বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় মুক্তিযোদ্ধা সোহাগ মিয়া (৭৫), আবদুল কাইয়ুম (৪০), চা শ্রমিক রামচন্দ্র ভরসহ (৩০) কমপক্ষে ১০-১২ জন গ্রামবাসী আহত হন।

বিজিবি ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত ৯টার দিকে বিজিবির শরীফপুর ক্যাম্পের ছয় সদস্যের একটি টহল দল ইটারঘাট বাজার এলাকা থেকে লোকমান মিয়া (৪২) নামক এক চোরাচালানীকে আটক করে।

এরপর লোকমান ও তার সহযোগীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। পরে শ্রীমঙ্গলের ব্যাটালিয়ন সদর দফতর থেকে বিজিবির দুটি দল ঘটনাস্থলে যায়। পরে আহত সদস্যদের উদ্ধার করে শ্রীমঙ্গলের ব্যাটালিয়ন সদর দফতরে পাঠানো হয়।

বৃহস্পতিবার সকালে বিজিবির সেক্টর কামান্ডার পর্যায়ের উর্ধ্বতন একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও তদন্ত করেছে। তদন্তকালে উপস্থিত ছিলেন বিজিবি সিলেট সেক্টরের ৪৮ ব্যাটেলিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর নাজমুল সাকিব, ৪৬ ব্যাটলিয়ন শ্রীমঙ্গল সেক্টরের সুবেদার আবু জামান, আমতৈল ক্যাম্পের কোম্পানি কামান্ডার আবদুর রউফ এবং শরীফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব আলীসহ মেম্বাররা উপস্থিত ছিলেন।

শরীফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব আলী জানান, পরিস্থিতি আপাতত শান্ত আছে।

বিজিবির ৪৬ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফুল হক জানান, লোকমান এলাকার চিহ্নিত চোরাকারবারী।

কুলাউড়া থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান থানায় কোনো মামলা হয়নি বলে জানান।

বিজিবি সিলেট সেক্টরের ৪৮ ব্যাটেলিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর নাজমুল সাকিব জানান, গ্রামবাসী যে ঘটনা ঘটিয়েছে তা ঠিক নয়। অপরাধী গ্রেফতারে গ্রামবাসীর সহযোগিতা করা উচিত ছিল।