স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা কাওছার বাদ

Wednesday, October 23rd, 2019

মোল্লা মো. আবু কাওছার। ছবি: ফেসবুক থেকে নেওয়ামোল্লা মো. আবু কাওছার। ছবি: ফেসবুক থেকে নেওয়া

 

ডেস্ক নিউজঃ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে মোল্লা মো. আবু কাওছারকে। তাঁকে অব্যাহতি দেওয়ার কথা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশেই এই অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

আজ বুধবার ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভার পর সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান ওবায়দুল কাদের। ধানমন্ডির ২৭ নম্বরে হোয়াইট হল কনভেনশন সেন্টারে বর্ধিত সভা হয়।

২০১২ সালের জুলাই মাসে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে মোল্লা কাওছার সভাপতি এবং পংকজ দেবনাথ সাধারণ সম্পাদক হন। সম্প্রতি ঢাকার ক্যাসিনো কাণ্ডে ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের সঙ্গে সম্পৃক্ততা থাকার অভিযোগে বিভিন্ন গণমাধ্যমের শিরোনাম হন মোল্লা কাওছার। এরপর থেকে তাঁকে সংগঠনের পদ থেকে বাদ দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে আওয়ামী লীগের ভেতর আলোচনা হয়।

গত সেপ্টেম্বরে শুরু হওয়া ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের পর আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী একাধিক সংগঠনের কয়েকজন নেতার বিরুদ্ধে অবৈধ এ ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠে। ইতিমধ্যে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে ক্যাসিনো ব্যবসায় জড়িত অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মহানগর আওয়ামী লীগের একাধিক নেতার বাসায় একাধিক অভিযানও হয়েছে।

গত রোববার রাতে গণভবনে যুবলীগ নেতাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বৈঠক করেন। বৈঠকে যুবলীগের চেয়ারম্যান পদ থেকে ওমর ফারুককে বাদ দেওয়া হয়। যুবলীগ আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন।ক্যাসিনো-কাণ্ডে যুবলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের শীর্ষ নেতাদের যুক্ত থাকার অভিযোগের মধ্যেই ওমর ফারুককে সংগঠনের শীর্ষ পদ থেকে বাদ দেওয়া হয়। গত ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান শুরুর পর দু-এক দিন সরব থাকলেও পরে সবকিছু থেকে অনেকটা দূরে সরে যান ওমর ফারুক। আজ আবার স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতিকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানানো হলো।

আজ ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির সঙ্গে কথা হয়েছে। নেত্রীর (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) নির্দেশনা আমি তাঁকে জানিয়েছি। স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতিকেও নেত্রী তাঁর পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন। এটা অলরেডি আমি তাঁকে (মোল্লা কাওছার) জানিয়েছি।’

আজ ওবায়দুল কাদের চলমান শুদ্ধি অভিযান নিয়েও কথা বলেন। কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের ঘরের মধ্য থেকে তিনি শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন। কঠিন কিছু সিদ্ধান্ত তিনি নিয়েছেন। এ সিদ্ধান্তের আওতায় যারাই অভিযুক্ত হবে, যারাই দুর্নীতির সঙ্গে, সন্ত্রাসের, মাদকের সঙ্গে যুক্ত থাকবে, তাদের কেউ ছাড় পাবে না।’