চন্দনকৌঠা স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ

Thursday, October 10th, 2019


তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি:  রাজশাহীর তানোরের কলমা ইউপির চন্দনকৌঠা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দূর্নীতি এবং রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের নির্দেশনা উপক্ষো করে পরিচালনা (ম্যানেজিং) কমিটি গঠনের অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়রা জানান, প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন তার অনুগত এক কর্মচারীর যোগসাজশে গঠনতন্ত্র উপেক্ষা ও নীতিমালা লঙ্ঘন করে পচ্ছন্দের লোকদের নিয়ে গোপণে পকেট কমিটি করেছেন। আবার ঝড়ে স্কুলের ক্ষতিগ্রস্ত ঘর মেরামতের জন্য এমপির বিশেষ বরাদ্দ থেকে ১০ বান্ডিল উন্নত মানের ঢেউটিন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। কিšত্ত প্রধান শিক্ষক এসব ঢেউটিন ক্রয় দেখিয়ে শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের কাছে আনুঃপাতিক হারে চাঁদা আদায় করে তা আতœসাৎ করেছে। অপরদিকে অনিয়মের মাধ্যমে পকেট কমিটি গঠনের খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকার অভিভাবক,শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে উঠেছে সমালোচনার ঝড়। এদিকে পকেট কমিটি গঠনের পর থেকেই বিদ্যালয়ের অভিভাবকগণ তা অবিলম্বে বাতিল করে নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনের দাবি করে আসছে। সম্প্রতি এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ এবং অনিয়ম তদন্তে স্থানীয় সাংসদ, রাজশাহী জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা, তানোর উপজেলা চেয়ারম্যান ও তানোর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে ডাকযোগে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে বলেও একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক অভিভাবক বলেন, নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন কমিটি করা না হলে তারা ওই স্কুলে ছেলেমেয়ের আর লেকাপড়া করাবেন না। আর কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে এলাকার বিবাদমান দুটি পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।
অভিভাবকগণ অভিযোগ করে বলেন, তানোরের কলমা ইউপির চন্দনকৌঠা উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির মেয়াদোত্তীর্ন হওয়ায় রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড থেকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়। নির্বাচনের কমিটি গঠনের নির্দেশনা থাকলেও বোর্ডের নির্দেশনা গোপণ রেখে নির্বাচনের বিধান ভঙ্গ করে, তফসিল, মনোনয়ন ও নির্বাচনের সার্বিক বিধান ভঙ্গ করে প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন তার অনুগত এক কর্মচারীর যোগসাজশে তাদের অনুগতদের নিয়ে পকেট কমিটি করেন। আর অবৈধভাবে গঠিত এই কমিটির বৈধতা প্রমাণের জন্য কমিটি গঠনের সপ্তাহ খানেকের মাথায় অভিভাবক সমাবেশ আহবান করা হয়। এদিকে সমাবেশের শুরুতেই প্রধান শিক্ষক অভিভাবকদের কাছে থেকে উপস্থিতি স্বাক্ষর নিয়ে সমাবেশ শেষে কমিটি ঘোষণা করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সহকারী শিক্ষক বলেন, প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন তার অনুগত অফিস সহকারীর সহায়তায় সবকিছু গোপণ রেখে পকেট কমিটি ঘোষণা করেন, এছাড়াও অনুদানের ঢেউটিন ক্রয় দেখিয়ে বিপুল অঙ্কের টাকা আতœসাৎ করেছেন। এ বষিয়ে জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কমিটি গঠনে তার কোনো হাত নেই, আর ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘর মেরামত করার জন্য সকলে ইচ্ছেকৃতভাবে আর্থিক সহায়তা করেছে এটাকে চাঁদাবাজি বা আতœসাৎ বলা ঠিক নয়। এব্যাপারে সভাপতি কৃদরত আলী কোনো মন্তব্য করতে অপপারগতা প্রকাশ করেন। এব্যপারে তানোর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।