তানোরে মাতৃত্বকালীন ও ভিজিডি খাতে অতিরিক্ত বরাদ্দ

Tuesday, September 17th, 2019

আলিফ হোসেন (তানোর প্রতিনিধি) রাজশাহীর তানোরে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী আলহ্জ্ব ওমর ফারুক চৌধূরী এমপির প্রচেষ্টায় আওয়ামী লীগ সরকারের ১০ বছরে সমাজের পিছিয়ে নারীদের ভাগ্যর দৃশ্যমান উন্নয়ন হয়েছে বদলে গেছে নারী শিক্ষা, স্বাস্থ্য, চাকরি ও চিকিৎসাসহ প্রতিটি ক্ষেত্রের দৃশ্যপট।

জানা গেছে, আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে মাতৃত্বকালীন ভাতা (মাদার ল্যাকটেটিং) ও ভিজিডি খাতে উপকারভোগী ও বরাদ্দের পরিমাণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। তানোরের ২টি পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় মোট ১৯৭৩ জন মা-গর্ভবতী নারী মাতৃত্বকালীন ভাতা পাচ্ছেন। এর মধ্যে তানোর পৌরসভায় ৬৫০ জন, মুন্ডুমালা পৌরসভায় ৭৫০ জন ও ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় ৬২৩ জন মোট ১৯৭৩ জন। মাতৃত্বকালীন ভাতা উপকারভোগীরা মাথা পিছু বছরে ৯৬০০ টাকা করে ৩ বছরে মোট ২৮৮০০ টাকা পাবেন। সেই হিসেবে ১৯৭৩ জন মা-গর্ভবতী নারী ৩ বছরে ৫ কোটি ৬৮ লাখ ২২ হাজার ৪০০ টাকা পাবেন।

অন্যদিকে ভিজিডি খাতেও উপকারভোগীর সংখ্যা ও ভাতার পরিমান বৃদ্ধি করা হয়েছে। জানা গেছে, তানোরে বিগত ১৯৯১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের ১৫ বছরে ভিজিডি কার্ডধারী উপকার ভোগীর সংখ্যা ছিল মাত্র ২৯৬৩ জন এবং এসব উপকারভোগীদের বরাদ্দ করা হয়েছিল মাত্র ৫৩ লাখ ৩৩ হাজার ৪০০ টাকা। অথচ বিগত ২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগ সরকারের ১০ বছরে ভিজিডি কার্ড ধারী উপকারভোগীর সংখ্যা ও বরাদ্দ প্রায় চারগুন বৃদ্ধি করা হয়েছে। তানোরে এখন ১৪ হাজার ১২৪ জন ভিজিডি কার্ডধারী উপকারভোগীর মধ্যে ২ কোটি ৩৯ লাখ ১১ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে। অর্থাৎ বিএনপি-জামায়াতের ১৫ বছরের থেকে আওয়ামী লীগের ১০ বছরে বিজিডি কার্ডধারী উপকার ভোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে ১১ হাজার ১৬১ জন এবং অতিরিক্ত বরাদ্দ দেয়া হয়েছে এক কোটি ৮৬ লাখ ৫৭ হাজার ৬০০ টাকা। আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে প্রতিটি ক্ষেত্রে দৃশ্যমান অগ্রগতি বা উন্নয়ন হয়েছে।