রাজশাহীতে এমপি ফারুকবিরোধী শিবিরে হতাশা

Tuesday, September 10th, 2019


আলিফ হোসেন, তানোর প্রতিনিধি:
রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) সংসদীয় আসনের
আওয়ামী লীগ দলীয় সাংসদ, রাজশাহী জেলা আওয়ামী
লীগের সভাপতি, সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী বিলাস ও
প্রচার বিমূখ. সৎ রাজনৈতিকের প্রতিকৃতি, কর্মী
ও জনবান্ধব রাজনৈতিক নেতা এমপি আলহাজ্ব ওমর ফারুক
চৌধূরীকে বির্তকিত করতে এমপিবিরোধী শিবিরের
উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত প্রচার-প্রচারণায় জনমনে চরম
অসন্তোষ সৃষ্টি করেছে। এমপিবিরোধী শিবির যেই
প্রত্যাশা নিয়ে এমপি ফারুক চৌধূরীকে বির্তকিত
করতে নানা অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে আওয়ামী লীগের
তৃণমূল ও সাধারণ মানুষের প্রতিরোধের মূখে তাদের
সেই প্রত্যাশা উবে গেছে হয়েছে রণেভঙ্গ। এসব
গায়েবী, ভিত্তিহীন মনগড়া ও উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত খবর
প্রকাশের পর এমপির রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের ওপর
নেতিবাচক কোনো প্রভাব তো পড়েই নি বরং সাধারণ
মানুষ তাদের প্রতি বিক্ষুব্ধ হয়ে আরো বেশি
ঐক্যবদ্ধভাবে এমপি মূখী হয়েছে। রাজশাহীর
রাজনৈতিক অঙ্গনে এখানো সাধারণ মানুষের কাছে
এমপি ফারুক চৌধূরী পচ্ছন্দের শীর্ষে রয়েছে। রাজশাহী
অঞ্চলে দলমত নির্বিশেষে সব শ্রেণী-পেশার মানূষ
এখানো রাজশাহীতে এমপি ফারুক চৌধূরীকে
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা ও জননেত্রী শেখ
হাসিনার প্রতিনিধি মনে করেন। এই জনপদের
গণমানুষের নেতা এমপি ফারুকের বিরুদ্ধে একের পর এক
এমন ভিত্তিহীন খবর প্রকাশের প্রতিবাদে সাধারণ
মানুষ প্রতিবাদমূখর হয়ে উঠেছে। ইতমধ্যে তারা
বিক্ষোভ সমাবেশ, প্রতিবাদসভা ও মানববন্ধন

কর্মসূচির মাধ্যমে তাদের প্রতিবাদ অব্যাহত রেখেছে
বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এদিকে সাধারণ
মানুষের অভিমত, এমপি হিসেবে ফারুক চৌধূরী
হয়তো সব মানুষের প্রত্যাশা পূরুণ করতে পারেননি
এটা যেমন সত্য, তেমনি এমপি হিসেবে তার দ্বারা
কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি সেটাও সত্য। বুকে হাত রেখে
কেউ বলতে পারবে না সে যেই মতাদর্শীরই মানুষ হোক
এমপির দ্বারা তার ক্ষতি হয়েছে। আর এসব বিষয়
বিবেচনা করেই এই জনপদের সাধারণ মানুষ এখানো
এমপি ফারুক চৌধূরীর ওপর আস্থা রেখে তার নেতৃত্বকে
স্বাগত জানিয়েছে।

অনুসন্ধানে উদ্বেগজনক তথ্য পাওয়া গেছে, রাজশাহী-১
আসনে এমপি নির্বাচিত হবার পর পরই তোষামদির
রাজনীতি না করায় এমপি ফারুক চৌধূরীর সঙ্গে
আওয়ামী লীগের এক শ্রেণীর নেতার মতবিরোধ সৃষ্টি
হয়। তারা জানেন যে এখানে এমপি ফারুক চৌধূরীর
কোনো বিকল্প নাই এমপির বিরুদ্ধে এমন কোনো শক্ত
অভিযোগ নাই যেটা হাইকমান্ডের কাছে উঙ্খাপন করে
তার নেতৃত্ব ঠেকানো বা নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া
যায়। এমপিবিরোধী শিবির তার বিরুদ্ধে শক্ত অভিযোগ
দাঁড় করাতে নানা অপতৎপরতায় লিপ্ত হয়। এমনকি এমপির
বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে তারা হাইকমান্ডের কাছে লিখিত
অভিযোগ করেও তা প্রমাণে ব্যর্থ হয়ে হাইকমান্ডের
কাছে ধরা খায়। এর পর থেকেই তারা এমপিকে
বির্তকিত করার উদ্দেশ্যে তার বিরুদ্ধে শক্ত অভিযোগ দাঁড়
করাতে নানা অপতৎপরতায় জড়িয়ে পড়েছে। কিšত্ত এমপি
ফারুক চৌধূরীর জনপ্রিয়তার কাছে তারা বার বার
পরাজিত হয়েছে আবারো হবে। এমপি ফারুক চৌধূরীর
রাজনীতি একশ্রেণীর সার্ট-প্যান্ট পরা চাঙ্কু-পাঙ্কু বা

হ্যায়-হ্যালো নির্ভর নয় তার রাজনীতি পা-ফাটা ঘামে
ভেজা কৃষক তথা সাথারণ মানুষ নির্ভর তায় সাধারণ
মানুষের মধ্যে এখানো তিনি জনপ্রিয়তার শীর্ষে
রয়েছেন। ফলে এমপি ফারুকবিরোধী শিবিরের ফের রণেভঙ্গ
হয়েছে, কেউ কেউ আবার মানষিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে
হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে গায়েবী স্বপ্ন দেখে ফাউল
কথা প্রচার করছে।