জগন্নাথপুরে ১৬ বছর পর নির্বাচন হওয়ায় জনমনে আনন্দ-উল্লাস

Thursday, September 5th, 2019

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নে দীর্ঘ ১৬ বছর পর নির্বাচন হওয়ায় ¯’ানীয় জনমনে আনন্দ-উল্লাস বিরাজ করছে। এ যেন যুদ্ধ বিজয়ের স্বাদ। দীর্ঘ দিনের বেদনা মুহুর্তেই হারিয়ে যায়। আনন্দের সাথে যোগ হয়েছে আবেগের। দীর্ঘদিন লড়াই করে যাওয়া প্রতিবাদীরা অবশেষে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েছেন। সেই সাথে শুরু হয়েছে নির্বাচনী আমেজ। চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য প্রার্থীরা নির্বাচনে অংশ নিতে তোড়জোড় শুরু করেছেন। অনেকে প্রবাসীরা নির্বাচনে অংশ নিতে বিভিন্ন দেশ থেকে ছুটে আসছেন। সমর্থকরা তাঁদের পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। ভোটাররা দীর্ঘ ১৬ বছর পর তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে নতুন জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করার জন্য অপেক্ষার প্রহর গুনছেন।
জানাযায়, সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার ৩নং মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ ও সিলেটের বিশ^নাথের দশঘর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে হয়নি। দুই উপজেলার সীমানা নির্ধারণ নিয়ে মামলা সংক্রান্ত জটিলতার কারণে নির্বাচন না হওয়ায় জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। অবশেষে মামলা নিস্পত্তি হওয়ায় ৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী তপশীল ঘোষণা করেন। তপশীল অনুযায়ী সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আগামী ১৪ অক্টোবর মিরপুর ইউনিয়নের নির্বাচন হ”েছ।
জগন্নাথপুর নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, ৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার থেকে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিল শুরু হয়েছে। চলবে ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। ১৫ সেপ্টেম্বর যাচাই-বাছাই, ২২ সেপ্টেম্বর প্রত্যাহার ও প্রতীক বরাদ্দ এবং ১৪ অক্টোবর নির্বাচন হবে। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান বলেন, নির্বাচনটি শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন করতে সব ধরণের প্র¯‘তি নেয়া হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, শুধু মিরপুর ইউনিয়নে নির্বাচন হলেও বিশ^নাথের দশঘর ইউনিয়নে হ”েছ না।
এদিকে-নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জমির উদ্দিন, মাস্টার সিরাজুল ইসলাম, মাহবুবুল হক শেরিন, আবদুল কাইয়ূম মশাহিদ, মঞ্জুরুল আমিন জুয়েল, সাহাব আলী, নোমান আহমদ, ইলিয়াস আলী, আবদুল কাদির, শহীদ মিয়া, মুহিব উদ্দিন সেলিম, পারভেজ তালুকদার সহ অনেকের নাম শোনা গেলেও এখন পর্যন্ত কেউ মনোনয়নপত্র দাখিল করেননি। #