দুমুখো মাছ!

Sunday, August 25th, 2019

 

ডেস্ক নিউজঃ দুমুখো সাপের কথা প্রায়ই শোনা যায়। অনেকে দেখেছেন বলেও দাবি করেন। এমনকি দুমুখো মানুষও জন্ম নিয়েছে অনেক! কিন্তু দুমুখো মাছ দেখেছেন কখনো?

সম্প্রতি এমনই এক অদ্ভুতদর্শন মাছের ছবি ভাইরাল হয়েছে ইন্টারনেটে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের একটি লেকে ধরা পড়েছে মাছটি। অদ্ভুত চেহারার মাছের ছবিটি দেখে অনেকেই অবাক।

ডেবি গেডেস নামের এক নারী তাঁর স্বামীর সঙ্গে নিউইয়র্কের চ্যাম্পলেন লেকে মাছটি ধরেন। তিনি বলেন, ‘আমরা যখন নৌকায় তুললাম, তখন মাছটাকে দেখে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। মাছের দুটি মুখ! খুব আশ্চর্যজনক প্রাণী!’

ডেবি জানিয়েছেন, তিনি এবং তার স্বামী কয়েকটি ছবি তুলে তারপর হ্রদে ফের মাছটিকে ছেড়ে দেন।

মাছের একটি ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছে নটি বয়েজ ফিশিং। এটি একটি মাছ ধরার দল যারা স্থানীয় টুর্নামেন্টে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। ছবিটি বিশ্বজুড়েই ফেসবুকে ব্যাপকভাবে শেয়ার হয়েছে।

সোমবার ছবিটি শেয়ার করার সময় নটি বয়েজ ফিশিং লিখেছে, দুই মাথার লেক ট্রাউট কয়েক দিন আগে সহকর্মী ডেবি গেডেসের হাতে চ্যাম্পলেন লেকে ধরা পড়েছিল।

অনলাইনে শেয়ার হওয়ার পর থেকে দুমুখো মাছের ছবিটি কয়েক লাখ মানুষ শেয়ার করেছেন এবং হাজারেরও বেশি মন্তব্য পড়েছে। প্রাণিটি সম্পর্কে একাধিক তত্ত্বও ছড়িয়ে পড়েছে কমেন্ট বক্সে।

কমেন্টে একজন লিখেছেন, জীববিজ্ঞানী হিসাবে বলছি, আমি মনে করি এটি একটি বিকৃতি। ভ্রূণগতভাবে কিছু সমস্যা হয়েছে।

অন্য একজন বলেছেন, এটা দুমুখো ব্যাপার নয়… এটা একটা পুরানো আঘাত! সম্ভবত অনুপযুক্ত পরিচালনার কারণে।

লেক চ্যাম্পলেনে বসবাসকারী এক পৌরাণিক দৈত্যের কথা উল্লেখ করে তৃতীয় এক ব্যক্তি প্রশ্ন করেছেন, চ্যাম্পির বংশধর?

কেউ কেউ এই অদ্ভুত মাছের পেছনে জলবায়ুর পরিবর্তনকেই কারণ হিসেবে দেখছেন।

পরিবেশ দুষণকে কারণ হিসেবে মেনে নিতে রাজি ফ্যাক্টিউ। চ্যাম্প্লেইন হৃদটির দুষণও দীর্ঘ দিন ধরে আলোচনায়। কারণা কানাডার পয়ঃনিষ্কাশনের ডাম্পিং গ্রাউন্ড হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছে এটি।

আর গেডেস বলছেন, বিষয়টি অন্য কিছুও হতে পারে। তার মতে, আগে হয়তো কারও বড়শিতে ধরা পড়েছিলো মাছটি। তবে তা ছিড়ে বের হয়ে যায়। এতে দুটো মুখের সৃষ্টি হয়।