কক্সবাজার বড় বাজার মাংস ব্যবসায়ী রাজা মিয়া রাজুর বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ 

Friday, July 12th, 2019
গত ১১জুলাই অনলাইন নিউজ পোর্টাল দৈনিক প্রতিবাদ ডটকম এবং সিটিজিপোষ্ট ডটকমে ‘কক্সবাজার শহরের পুরো পরিবার নিয়ে মাদক ব্যবসা অধরা কসাই রাজু’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ জানাচ্ছি।উক্ত সংবাদে আমাকে নিয়ে মিথ্যা বিত্তহীন মনগড়া সব কাল্পনিক তথ্য দিয়ে উদ্দেশ্য প্রনোদিত ভাবে আমাকে উপস্থাপন করা হয়েছে।সেখানে বলা হয়েছে আমার ঘোনারপাড়ায় ইয়াবা সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছি।আমি দীর্ঘ ২০বছরের অধিক সময় ধরে বড় বাজারে সুনামের সাথে মাংসের ব্যবসা করে আসিতেছি।আমার ৪ মেয়ে ২ ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে ঘোনার পাড়ার,গয়াম বাগান এলাকায় বসবাস করতেছি।২ মেয়েকে বিয়ে দিয়ে দিয়েছি সমাজের চিরাচরিত নিয়মানুযায়ী। আমার মা ভাই বোন ও অনন্য আত্মীয় স্বজনরা কারও সাথে আমার নূন্যতম সম্পর্ক নেই। সবাই আলাদা আলাদা বসবাস করেন।আমার ব্যবসার কাজের জন্য মোটরসাইকেল খুবই প্রয়োজন বোধে বাধ্য হয়ে কিনতে হয়েছে।আর সীবীচে ২ জন পার্টনারশিপএ বিচ বইকের ব্যবসা করি।আমি চ্যালেন্ঙ করে বলতে পারি যে আমি কোন অবৈধভাবে কাজে জড়িত নাই।দীর্ঘদিন ধরে মাংস ব্যবসার মন্দাভাব চলছে বিধায় বিভিন্ন মাইক্রো ক্রেডিট সংস্থা ও ব্যাংক এবং বিভিন্ন গরু ব্যবসায়ি হতে ৫০ লক্ষ টাকার উপরে ঋণ হয়ে গেছে।যেভাবে আমাকে সম্পদশালী বনানো হয়েছে সেটা হাস্যকর ছাড়া কিছু নয়।আমি কোন দিন বিএনপি জামায়াতের রাজনীতি সাথে জড়িত ছিলাম না।আমি রাজনীতি করি না ব্যবসা করি।সংবাদে বলা হয়েছে টেকনাফের কোন এক ইয়াবা সুন্দরীকে বিয়ে করেছি।এরকম জঘন্য মিথ্যা সংবাদের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।অহেতুক আমাকে সমাজ ও ব্যবসায়ী মহলের কাছে হেয় করার জন্য সাংবাদিককে মনগড়া সংবাদ সরবরাহ করা হয়েছে।এসব সংবাদে আমার ব্যবসায়ী মহল,এলাকাবাসী, শুভাকাঙ্ক্ষী ও প্রশাসনকে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানাচ্ছি। প্রশাসনের প্রতি ওপেন আহবান জানাচ্ছি,প্রকাশিত সংবাদের সাথে আমার নূন্যতমও সম্পর্ক নেই। যদি কোন অবৈধ কাজের সাথে আমার সম্পর্ক আছে প্রমান করতে পারেন  সেচ্ছায় কারাবরণ করবো। আর সংবাদ সংগ্রহকারী সাংবাদিক ভাইদের কাছে অনুরোধ করছি সত্য মিথ্যা যাচাই না করে প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে মনগড়া সংবাদ প্রকাশ থেকে বিরত থাকবেন।
অন্যতায় আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হবো।
প্রতিবাদকারী
রাজা মিয়া রাজু
গরু মাংস ব্যবসায়ী
বড় বাজার, কক্সবাজার।