১, ১, ১ এবং সেমিতে এ কোন কোহলি!

Wednesday, July 10th, 2019

আউট হয়ে ফিরছেন বিরাট কোহলি। ছবি: রয়টার্সআউট হয়ে ফিরছেন বিরাট কোহলি। ছবি: রয়টার্স

ডেস্ক নিউজঃ নিউজিল্যান্ড পেসারদের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি ভারতের টপ অর্ডার। রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, লোকেশ রাহুল তিনজন মিলে এমন অঙ্কের রান করে ফিরেছেন যা ওয়ানডে ইতিহাসে এর আগে কখনো দেখা যায়নি।

এমন কিছু ঘটবে তা কজন ভেবেছে? বড়জোর নিউজিল্যান্ডের সমর্থকেরা। ম্যানচেস্টারের মেঘাচ্ছন্ন আকাশ দেখে আশার বুদ্‌বুদ উঠেছিল তাঁদের মনে। সংগ্রহটা আড়াই শ-র নিচে হলেও ট্রেন্ট বোল্ট, ম্যাট হেনরিরা আছেন তো! ভারতীয় টপ অর্ডারে মড়ক লাগাতে পারলে কিউইদের ফাইনালে ওঠার আশার পালে আরেকটু হাওয়া লাগবে। বোল্ট-হেনরি পেস জুটি এ মড়ক লাগিয়েছেন মাত্র ১১ বলের ব্যবধানে। আর তাতে স্কোরবোর্ডে এমন কিছু দেখা গেল যা ওয়ানডে ইতিহাসে এর আগে কখনো দেখা যায়নি।

দ্বিতীয় ওভারের তৃতীয় বলে রোহিত শর্মাকে উইকেটের পেছনে ক্যাচ বানিয়েছেন হেনরি। এ বিশ্বকাপে ৫ সেঞ্চুরি করা রোহিত সেমির মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ফিরেছেন মাত্র ১ রান করে। মাঝে ৬ বল পর বিরাট কোহলিকে এলবিডব্লু ফাঁদে ফেলেন বোল্ট। কোহলিও ফিরেছেন ১ রান করে। ঋষভ পন্ত ওই ওভার কোনোমতে কাটিয়ে দেওয়ার পর আবারও আঘাত হানেন হেনরি। এ পেসারের সুইং সামলাতে না পেরে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন লোকেশ রাহুল। তিনিও আউট হন মাত্র ১ রানে। অর্থাৎ ভারতীয় টপ অর্ডারের এ তিন ব্যাটসম্যানেরই স্কোর—১, ১ ও ১। ওয়ানডে ইতিহাসে এর আগে কোনো ম্যাচেই টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান ১ রান করে আউট হননি। ৪৮ বছরের ওয়ানডে ইতিহাসে এমন ঘটনা এই প্রথম।

রোহিত ও লোকেশ না হয় সুইং সামলাতে না পারার খেসারত দিয়েছেন। আর স্টাম্পের বল আড়াআড়ি খেলার মাশুল গুনেছেন কোহলি। ধারাভাষ্যকারেরা বলছিলেন, সোজা ব্যাটে বলটা খেললে সম্ভবত ফাঁদে পড়তেন না ভারতীয় অধিনায়ক। আসলে বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল এলেই কোহলির কী যেন হয়! এ নিয়ে তিনটি বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল খেলছেন কোহলি। এর মধ্যে কোনো ম্যাচেই ২১ বল খেলার বেশি উইকেটে থাকতে পারেননি। তিনটি সেমিতেই বাঁ হাতি পেসারের হাতে আউট হয়েছেন আজকের ভারত অধিনায়ক। ২০১১ -কে মোহালির সেমিতে ফিরেছিলেন ওয়াহাব রিয়াজের বলে, ২০১৫ সালে সিডনিতে মিচেল জনসন। এবার তাঁকে ফেরালেন ট্রেন্ট বোল্ট। আরেকটি ব্যাপার, ক্রম ধরলে বিশ্বকাপ সেমিতে কোহলির বল খেলার সংখ্যা কমছে!

২০১১ বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ২১ বলে ৯ রান করে আউট হয়েছিলেন কোহলি। বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে এটাই তাঁর সর্বোচ্চ খেলা বলসংখ্যা। পরের বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল থেকে ১ রানে আউট হওয়ার পথে রয়েছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যান। চার বছর আগে সে ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কোহলি আউট হয়েছিলেন ‘আনলাকি থার্টিন’—১৩ বলে ১ রান করে। আর আজ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টিকেছেন মাত্র ৬ বল। সব মিলিয়ে এ তিন বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে কোহলির মোট সংগ্রহ ১১। আর ব্যাটিং গড় ৩.৬৭!

ভারতীয় টপ অর্ডারে মড়ক লাগতে দেখা কোনো নিয়মিত ঘটনা নয়। গত কয়েক বছরে দলটির ব্যাটিংয়ে ‘মেরুদণ্ড’-ই প্রথম তিন ব্যাটসম্যান। শিখর ধাওয়ান না থাকায় তাঁর জায়গায় ঢুকেছেন লোকেশ রাহুল। এ ছাড়া রোহিত ও কোহলি তো আছেনই—এ দুজনই মূলত ভারতীয় ব্যাটিংয়ের স্তম্ভ। এ দুজনকে এক অঙ্কের রান করে ফিরতে দেখাও গত দুই বছরের মধ্যে বিরল ঘটনা। সবশেষ এমন দেখা গেছে ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে।

সে ম্যাচে ভারত কিন্তু হেরেছিল।