মঠবাড়িয়ায় স্কুলছাত্রী গণধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেফতার

Thursday, June 13th, 2019

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার চাঞ্চল্যকর ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি ধর্ষক সাইফুলকে (২০) অবশেষে থানা পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) ভোরে মিরুখালী বাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত সাইফুল ওয়াহেদাবাদ গ্রামের মতিউর রহমান জমাদ্দারের ছেলে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মাজাহারুল আমিন (বিপিএম) জানান, গত ৩০ নভেম্বর ২০১৮ দুপুরে ওই স্কুলছাত্রী উপজেলার খায়ের ঘটিচোরা গ্রামের বাড়ি থেকে মিরুখালী বাজারসংলগ্ন স্কুলে প্রাইভেট পড়তে যাবার পথের মধ্যে সাইফুল কথা বলার জন্য রাস্তার পাশে একটি ঘরে ডেকে নেয়। এরপর ওই ঘরে ওঁৎ পেতে থাকা সাইফুলের বন্ধু ইসমাইল, শাওন, নাজমুল মিলে ওই স্কুল ত্রীকে জোরর্পূবক পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ সময় ধর্ষকরা ধর্ষণের অশ্লীল চিত্র মোবাইলে ধারণ করে। এ ঘটনার পর পুনরায় গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ধর্ষক সাইফুল ও ইসমাইল ওই ছাত্রী স্কুলে আসার পথে ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ধারাল চাকু নিয়ে ভয় দেখিয়ে আবারও শারীরিক সম্পর্ক করার প্রস্তাব দেয়। পরে ওই স্কুলছাত্রী অভিভাবকদের জানালে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে মঠবাড়িয়া থানায় চার ধর্ষককে আসামি করে মঠবাড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এ ঘটনায় ইসমাইল, শাওন ও নাজমুলকে গ্রেফতার করলেও প্রধান আসামি পলাতক ছিল।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আবদুল্লাহ গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি সাইফুলকে গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চত করেন।

এদিকে চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী গণধর্ষণের সব আসামি গ্রেফতার হওয়ায় জনমনে স্বস্তি ফিরে এসেছে।