স্বরূপকাঠীতে দুইদিনে তিনজন মাদকের গড-ফাদার আটক

Wednesday, June 12th, 2019

 

সুমন খান (স্বরূপকাঠী প্রতিনিধি) নেছারাবাদ (স্বরূপকাঠীতে) একের পর মাদক ব্যবসায়ীরা মাথা নাড়া চাড়া করে জেগে উঠছে স্বরুপকাঠীর ইন্দুরহাট ও মিয়ারহাট সহ অন্যের ইউনিয়নের কিন্তুু, পূনরায় তৎপরতা শুরু করেছে।

সম্প্রতি দেশে মাদক বিরোধী যৌথ অভিযান শুরু হলে একে একে এলাকা ছাড়তে শুরু করেছিল নাম প্রকাশ হওয়া সকল স্তরের মাদক ব্যাবসায়ীরা।

ওহিদুজ্জামন নামের এক শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীকে পিরোজপুর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের(ডিবি)কথিত ক্রশ ফায়ারের পর স্বরূপকাঠীতে সোনার হরিণে রূপ নিয়েছিল মাদক ব্যবসায়ীরা।

কিন্তুু বেশি কয়েক দিন স্থায়ী হলনা সে ভয়, পূনরায় ব্যবসা শুরু করেছে স্বরূপকাঠীর মাদক ব্যবসায়ীরা। সে অনুযায়ী থেমে নেই নেছারাবাদ স্বরুপকাঠী থানা পুলিশের কর্ম চাঞ্চল্য। নেছারাবাদ স্বরুপকাঠী থানা সাহসীকতা প্রমান করে দিলো একের পর এক, অফিসার ও আর্দশ সৈনিক মাদক বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেন, এ এস আই শরিফুল ইসলাম, এ এস আই মোজ্জামেল হোসেন, এ এস আই, শেখর, এ এস আই মিজান, এ এস আই নাঈম, তাদের মিশন চলতে থাকবে বলে, জানান আমরা জনগনের পাশে থেকে মাদক নিরমূল করবো।

ঈদের চাঁদ রাতে থেকে শুধু করে কিছু মাদক ব্যবসায়ীরা মাদক বেচাকেনা নিয়ে জয় লাভ করে আসছে। ঈদ শেষে পর পর দুই দিনে দুইশত পাঁচটি ইয়াবা ট্যাবলেটসহ গ্রেফতার করা হয়েছে তিন মাদক ব্যবসায়ীকে।

নেছারাবাদ থানার তথ্যমতে একাধীক মাদক মামলার আসামি সুটিয়াকাঠী গ্রামের ডি, কে পলাশ একশত টি ইয়াবা, বরছাকাঠী গ্রামের আলআমীন পাঞ্চাশটি এবং জবর দখল বা ভাড়াটিয়া ভাবে সোহাগদল গ্রামে জন্ম থেকে বসবাস করে আসা রোহিঙ্গা জাহিদ পঞ্চান্নটি ইয়াবা ট্যাবলেটসহ গ্রেফতার হয় গত ১১জুন মধ্যরাতে। এদের মধ্যে ডি,কে পলাশ গ্রেফতার হয় ১০জুন।

এবিষয়ে নেছারাবাদ স্বরুপকাঠী থানার অফিসার ইনচার্জ কে, এম তারিকুল ইসলাম বলেন, দুই দিনে তিন জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারে সক্ষম হয়েছে এবং মামলা প্রক্রিয়া চলছে, নেছারাবাদ স্বরুপকাঠী থানা পুলিশ, এমন অভিযান চলমান থাকবে মাদকের বিষয়ে কেউকে ছাড় দেয়া হবেনা।