আধুনিক সমাজে ধর্ষণের ব্যাপকতা স্মরণে বিশিষ্ট লেখক ও সাহিত্যিক অধ্যাপক নিজাম উদ্দিনের কবিতা ” সভ্যতার বস্ত্রহরণ” 

Saturday, June 8th, 2019
মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসাইন, রাঙ্গুনিয়া, প্রতিনিধি:
তুমি তো বিধাতার গড়া আপন সৃজন
তোমার প্রজন্মের কৃষি সুজলা শ্যামল;
তুমি বিনে নয়তো ধরা সুন্দর মনোহর
নরের নমস্য প্রতীমা তুমি নয়নের কাজল।
তুমি হাসো বলে ভোরের ঊষায় রাঙা হাসি
দীপ্তি ছড়ায় নিরবধি আনন্দে বয় ঝর্ণা;
বাদল বেয়ে নামে বৃষ্টি, দখিনা হওয়া চঞ্চল
পরম আরাধ্য রমণী তুমি বিচিত্র বর্ণা।
তুমি মণি-কাঞ্চন-হীরে মুক্তো-পান্নার আলয়
তোমাতে লয় প্রেমের ধ্বজা, নরের পথচলা;
তুমি স্বাধীনতা আনো, সহজ করো ধরা
মহান আশ্রয় হে জননী-জায়া-কন্যা অবলা।
তবে কেন ‘ইয়াসমিন’ অজস্র ‘বাঁধন’
‘তনু’ থেকে ‘নুসরাত’
নাম অজানা হাজারো ‘তানিয়া’ ……
পথে ঘাটে হারায় সম্ভ্রম?
‘আপনা মাংসে হরিণা বৈরী’ বলে কি
ছিন্ন করে তোমার সতীচ্ছদ?
অসুরের থাবা নামে তোমার ’পরে
খুবলে খায় তোমার ইজ্জত?
সভ্যতা আজ মাতাল  খুব
তোমায় শুধায় ‘রমণী’ বলে-
রমণের অবাক যন্ত্র বলেই কি
তোমার এ নামকরণ?
তোমার এমন ব্যাকরণ
করলো কে বিশ্লেষণ?
কুঠরী থেকে মাঠ-ঘাট-বাট
চলন্ত শকট, অলিগলি রাজপথ;
প্রশাসনের আশ্রমই বলো
কোথায় তুমি নিরাপদ?
তুমি কি নিয়তির ঘেরা টোপে
‘ইডিপাস-জোকাস্টা’
তুমি কি রাধিকা?
কানুর লালসার লীলা?
তবে ‘তুমি যমুনার ঘাটে যেওনা বালা
ওখানেতে বসে আছে কানু হারামজাদা।’
তুমি তো ‘দ্রৌপদী’ এখন
তোমার বস্ত্রহরণে তাই ‘দুঃশাসন’
চাঁড়াল বেশে ঘুরছে চারিধার
করছে তোমায় শিকারের আয়োজন।
ভণ্ড গুরুতে দেশ একাকার
দগ্ধ করে ইজ্জত তাদের;
যারা কন্যা-জায়া-জননী
তোমার-আমার-আপনার।
মোল্লা নামের বজ্জাত সব
পুরুত নামের নচ্ছার;
পিতৃ নামের পাষাণ এরা
ভ্রাতৃ নামের দুরাচার।
এরা নবী লূতের ভ্রষ্ট উম্মত
বিবি মরিয়মের সেরা নিন্দুক;
এরা লোলুপ ইভ্‌টিজার
এরা সহচর বয়-ফ্রেন্ড কামুক।
এরা কর্মী-চাটুকার-নেতা
এরা ‘দুঃশাসনে’র উত্তরসুরী
এরা কানুর চেলা, দানব বেশে
করছে তাই ধর্ষণের সেঞ্চুরী।
হে রমণী, কন্যা-জায়া-জননী
জেগে ওঠো, জেগে ওঠো ভৈরবী;
দহন করো শিশ্ন ওসব উদ্ধত পাঁঠার
রক্ষা করো রক্ষা করো ইজ্জত গৌরবী।
হে বিধাতা, তাদের ’পরে অভিশাপ
‘দুপায়ি জন্তু’ যারা ধর্ষণে মাতে
তাদের উপর অভিসম্পাত;
বধো তাদের প্রভু বধো
মানবতার শত্রু এরা
ধ্বংস করো তাদের, ধ্বংস করো।
পাদটীকা:
ইয়াসমিন- ১৯৯৫ সালের ২৫ আগস্ট দিনাজপুরে পুলিশের গণধর্ষণের শিকার ইয়াসমিন।
বাঁধন, তনু, নুসরাত, তানিয়া ……- বাংলাদেশে অগণিত লাঞ্চিত, ধর্ষিত ও মৃত রমণীর ঘটনা স্মরণীয়।
আপনা মাংসে হরিণা বৈরী- নিজ মাংস সুস্বাদু হওয়ার কারণে হরিণ অন্যের শত্রু। ‘চর্যাপদ’-এ বর্ণিত ভুসুকু পাদ’র পদ স্মরণীয়।
ইডিপাস-জোকাস্টা- প্রাচীন গ্রীক নাট্যকার সফোক্লিস-এর Oedipus The King (রাজা ইডিপাস) নাটকের ইডিপাস ও জোকাস্টা ইতিবৃত্ত স্মরণীয়।
কানু, রাধিকা- শ্রীকৃষ্ণ ও রাধার লীলা, বস্ত্রহরণ অংশ স্মরণীয়।
দ্রৌপদী, দুঃশাসন- ‘মহাভারত’-এ বর্ণিত উল্লেখযোগ্য চরিত্র। দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণ অংশ স্মরণীয়।
নবী লূতের ভ্রষ্ট উম্মত- পবিত্র কুরআন ও বাইবেলে বর্ণিত সমকামী অভিশপ্ত সম্প্রদায় বিশেষ।
বিবি মরিয়মের সেরা নিন্দুক- মাতা মেরি বা হযরত মরিয়ম (আ:)-এর পিতৃহীন অলৌকিক জন্মগ্রহণ নিয়ে যারা নিন্দা করে।
ভৈরবী-  হিন্দু পুরাণোক্ত দশমহাবিদ্যার অন্যতম মূর্তি।