বিএনপি রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া: হানিফ

Tuesday, May 14th, 2019

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, ‘বিএনপি রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া। এজন্যই ক্ষণে ক্ষণে তাদের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হয়।’ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদক মন্ডলীর সঙ্গে সহযোগী সংগঠন ও ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের এক যৌথসভা শেষে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এ সময় বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপির অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্তের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ কথা বলেন।

মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ‘আগামী ১৭ মে আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে রাজধানীর রমনাস্থ ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলোকচিত্র প্রদর্শনী এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। সারাদেশের সকল জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগেও আওয়ামী লীগ এবং সহযোগি ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করবে। এছাড়াও ১৭ মে থেকে ৩১ মে পর্যন্ত দলের ভ্রাতৃপ্রতিম ও সহযোগি সংগঠন আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবন ও কর্মের ওপর ধারাবাহিকভাবে আলোচনা সভার আয়োজন করবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আগামী অক্টোবরে আওয়ামী লীগের বর্তমান কার্যনির্বাহী সংসদের মেয়াদ শেষ হবে। নির্ধারিত সময় সীমার মধ্যে দলের জাতীয় সম্মেলন সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে। তৃণমূল থেকে সংগঠনকে ঢেলে সাজানোর জন্য জাতীয় সম্মেলনের আগে দেশের জেলা ও উপজেলা সম্মেলন সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে ৮টি সাংগঠনিক টিম গঠন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে সিলেট, চট্টগ্রাম, খুলনা বিভাগের বেশ কয়েকটি জেলায় বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেশ কয়েকটি জেলার সম্মেলনের সময়ও নির্ধারণ করা হয়েছে।’ এ সময় তৃণমূল থেকে সম্মেলন করে জাতীয় সম্মেলন আয়োজন করার জন্যও মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া সহযোগী সংগঠনগুলোর প্রতি আহ্বান জানান হানিফ।

আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের তথ্য নিয়ে তৈরি ডাটাবেজ তৈরির বিষয়ে হানিফ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নেতৃত্বে দলের ডাটাবেজ তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ইতোমধ্যে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ লক্ষ্যে ঈদ-উল-ফিতরের পর উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদকদের নিয়ে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এ বৈঠকে প্রয়োজনীয় সকল নির্দেশনা দেওয়া হবে।’ দলের ভ্রাতৃপ্রতিম ও সহযোগি সংগঠনের নেতাদেরও অনুরুপ ডাটাবেজ তৈরি করার জন্যও আহবান জানান তিনি।

আগামী ১৭ মে আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস সম্পর্কে কর্মসূচী ঠিক করতে এ যৌথ সভার আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক এডভোকেট আফজাল হোসেন, বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খানসহ সহযোগী সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা উপস্থিত ছিলেন।