বঙ্গবন্ধুর ঘাতক পরিবারের সদস্যকে নিয়ে যুবলীগ নেতার মনোনয়ন সংগ্রহ!

Wednesday, November 14th, 2018

হাসানুজ্জামান অমি (কলাপাড়া প্রতিনিধি) পটুয়াখালী-৪ (কলাপাড়া-রাঙ্গাবালী) আসনে এবার বঙ্গবন্ধুর ঘাতক মেজর মহিউদ্দীনের ভাই কে নিয়ে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করলেন রাঙ্গাবালী উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মো: হুমায়ুন তালুকদার। মনোনয়ন বিক্রীর শেষ দিনে ডামি প্রার্থী হিসেবে মেজর মহিউদ্দীনের ভাই যুবলীগ নেতা স্বজল তালুকদারকে নিয়ে ঢাকার ধানমন্ডিস্থ দলীয় কার্যালয় থেকে তিনি এ মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। এরপর স্বজল তার ফেসবুক আইডিতে মনোনয়ন সংগ্রহের ছবিটি পোষ্ট করার পর রাঙ্গাবালী-কলাপাড়ার আওয়ামীলীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হতে থাকে। দলের একাধিক নেতা-কর্মী বঙ্গবন্ধু হত্যার ঘাতক মেজর মহিউদ্দীনের পরিবারের এক সদস্যের আওয়ামী পরিবারে অন্তর্ভূক্তি সহ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রাক্কালে দলীয় অফিস থেকে ডামি প্রার্থীর পক্ষে মনোনয়ন সংগ্রহ করাকে দূরভিসন্ধি মূলক বলে মন্তব্য করেছেন।
এদিকে আ’লীগ ও এর সহযাগী সংগঠনের একাধিক সূত্র জানায়, দলের একজন প্রভাবশালী নেতার মদদে বঙ্গবন্ধু হত্যার সাথে সরাসরি জড়িত পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালী সদর ইউনিয়নের নেতা গ্রামের বিপথগামী সেনা কর্মকর্তা মেজর মহিউদ্দীনের চাচাতো ভাই কয়েক বছর আগে রহস্যজনক ভাবে রাঙ্গাবালী উপজেলা যুবলীগের সম্পাদক হন। এরপর দলের স্থানীয় ত্যাগী নেতা-কর্মীদের প্রবল আপত্তির মুখেও তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়নি; বরং শেল্টার দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। অপরদিকে বঙ্গবন্ধু হত্যার সাথে সরাসরি জড়িত রাঙ্গাবালী উপজেলার বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের মৌডুবি গ্রামের অপর সেনা কর্মকর্তা কর্নেল মহিউদ্দীনের ভ্রাতুস্পুত্র নাইমুল ইসলাম নাহিদ রহস্যজনক ভাবে কলাপাড়া পৌর ছাত্রলীগের যুগ্ম-সম্পাদক হন। এরপর দলের নাম ভাঙ্গিয়ে তারা উভয়েই বেপরোয়া হয়ে ওঠেন। যদিও সংশ্লিষ্ট কমিটির যুবলীগ ও ছাত্রলীগ সভাপতি বলছেন তাদেরকে দল থেকে অব্যাহতি দেয়ার কথা কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র।
এ বিষয়ে আওয়ামী যুবলীগ রাঙ্গাবালী উপজেলা সভাপতি মো: হুমায়ুন তালুকদার’র বক্তব্য জানতে তার মুঠো ফোনে একাধিকবার সংযোগ স্থাপনের চেষ্টা করেও সংযোগ না পাওয়ায় তার বক্তব্য জানা যায়নি।