অ্যাপলের শেয়ারের দর কমায় ধাক্কা পুঁজিবাজারে

Tuesday, November 13th, 2018

প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলের শেয়ার দর কমায় ধাক্কা লেগেছে যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজারে। গতকাল সোমবার পুঁজিবাজারে অ্যাপলের শেয়ারের দর কমে ৫ শতাংশ। এই দর কমায় অ্যাপলের মার্কেট ভ্যালু কমে যায় ৪০ বিলিয়ন ডলার।
সম্প্রতি অ্যাপলের অন্যতম সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান লুমেনটাম জানায়, প্রধান গ্রাহকদের একজন চালান কমিয়ে দিয়েছেন। প্রত্যাশা অনুযায়ী বিক্রি ও মুনাফা হবে না বলে জানায় লুমেনটাম। এতে কোম্পানিটির শেয়ারের দর কমে প্রায় ৩০ শতাংশ। এর আগে অ্যাপলের আরেক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান জাপান ডিসপ্লেও চাহিদা কমে যাওয়ায় মুনাফা কমবে বলে জানায়। এর প্রভাবে পুঁজিবাজারে পতনের মুখ দেখেছে অ্যাপল।
গতকাল অ্যাপলের শেয়ারের দর একপর্যায়ে কমে ১৯৪ ডলার, যা গত অক্টোবরের চেয়ে ১৫ শতাংশ কম। গত অক্টোবরে পুঁজিবাজারে সর্বোচ্চ পর্যায়ে ওঠে অ্যাপলের শেয়ারের দাম।
গতকাল লেনদেন শেষে অ্যাপলের শেয়ারের দর কমে ২ দশমিক ৩ শতাংশ। লেনদেন শেষে পুঁজিবাজারে স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড পুওর ৫০০ সূচক কমে ২ শতাংশ, নাসডাক সূচক কমে ২ দশমিক ৭৫ শতাংশ।
চলতি বছরের প্রথম দিকে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো পুঁজিবাজারে বেশ লাভের মুখ দেখে। এতে বেশ চাঙাভাব ছিল শেয়ারবাজারে। তবে বেশ কিছুদিন ধরে কর কাঠামোর পরিবর্তন ও বারবার নিয়ন্ত্রক সংস্থার তলব প্রবৃদ্ধিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। চলতি বছরে অ্যামাজনের শেয়ারের দর কমেছে ৪ শতাংশ। অ্যালফাবেট হারিয়েছে আড়াই শতাংশ ও ফেসবুকের দর কমেছে ২ দশমিক ৩ শতাংশ।
চলতি বছর আয় বাড়াতে নতুন কৌশল নেয় অ্যাপল। ফোনের দাম বাড়িয়ে দেয় তারা। এতে গত তিন মাসে বিক্রি খুব বেশি না বাড়লেও ভালো মুনাফা দেখেছে অ্যাপল। বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে গত বছরের একই সময়ের চেয়ে অ্যাপলের আয় বাড়ে ২০ শতাংশ বা ৬২ দশমিক ৯ বিলিয়ন ডলার। এ ছাড়া মুনাফা হয় ১৪ দশমিক ১ বিলিয়ন ডলার। তবে সম্প্রতি বিনিয়োগকারীদের কোনো ধরনের বিক্রয় তথ্য প্রদান করা হবে না—এমন ঘোষণা দেয় অ্যাপল। এর আগে আইফোন, আইপ্যাড ও ম্যাক কম্পিউটারের বিক্রয় তথ্য বিনিয়োগকারীদের দিত অ্যাপল। অ্যাপলের এই সিদ্ধান্তে বিশ্লেষকেরা কিছুটা উদ্বিগ্ন। তাঁরা সতর্ক করেছেন, বিক্রি কম, পণ্যের দাম বৃদ্ধির ওপর নির্ভরতা নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে অ্যাপলের মুনাফা।
চলতি মাসে পুঁজিবাজারে এর মধ্যে দুবার বড় ধরনের পতন দেখল অ্যাপল। ১ নভেম্বর প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারের দর কমে ৭ শতাংশ।