২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

২০১৭ সালে সৌদি আরবের আলোচিত দশ ঘটনা

প্রকাশিতঃ জানুয়ারি ৯, ২০১৮, ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ


২০১৭ সালে সৌদি আরবের আলোচিত দশ ঘটনা
সৌদি আরব মুসলিম হৃদয়ে গভীর ভালোবাসার জায়গা দখল করে আছে। সৌদির উন্নতিতে পুরো
মুসলিম বিশ্বই পুলকিত হয়। আর সৌদির অবনতিতে মুসলিমদের হৃদয়ের রক্তক্ষরণ হয়। গেল বছর সৌদি আরবে ঘটে গেছে বেশকিছু চাঞ্চল্যকর ঘটনা। সেসব ঘটনায় ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে মুসলিম বিশ্বজুড়ে।
এ মাটিতে শুয়ে আছেন পুণ্যাত্মারা। এ দেশের রাজ্য পরিচালনা করেছেন বিশ্বমানবতার মুক্তির দূত রাসুল (সা.)। স্বভাবতই মুসলিম বিশ্বের চোখ এ দেশের দিকে নিবদ্ধ। ২০১৭ সালে সৌদি আরবে ঘটে
যাওয়া আলোচিত ১০ ঘটনা তুলে ধরেছেন জাকারিয়া হারুন
নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি
সৌদি আরবে প্রথমবারের মতো নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতিসংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করা হয়েছে। ২০১৮ সালের জুন থেকে দেশটির নারীরা গাড়ি চালাতে পারবেন। বিশ্বে সৌদি আরবই একমাত্র দেশ, যেখানে নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি ছিল না। কিন্তু এখন সৌদি নারীরাও গাড়ি চালানোর অনুমতি পেতে যাচ্ছেন। সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের খবরে বলা হয়, বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ দেশটির নারীদের গাড়ি চালানোর লাইসেন্স দেওয়ার অনুমতি দিয়ে আদেশ জারি করেছেন।
গাড়ি চালানোর লাইসেন্স পাওয়ার জন্য নারীকে তাদের পুরুষ অভিভাবকদের অনুমতি নিতে হবে না। নারীরা তাদের ইচ্ছানুযায়ী যে-কোনো জায়গায় গাড়ি চালাতে পারবেন। সৌদি সরকারের এ পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসও এ উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন।

চলচ্চিত্রের দুয়ার উন্মোচিত
সৌদি আরবে খুলছে বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রের দুয়ার। ৩৫ বছরের মধ্যে এই প্রথম হলে বসে চলচ্চিত্র উপভোগ করতে পারবেন সৌদি নাগরিকরা। সৌদি আরবের সংস্কৃতি ও তথ্যমন্ত্রী আওয়াজ আলওয়াদের সভাপতিত্বে শিল্পটির নিয়ন্ত্রক সংস্থা জেনারেল কমিশন ফর অডিও ভিজ্যুয়াল মিডিয়ার সভায় এ সিদ্ধান্ত হয় যে, সিনেমা হলের জন্য অনুমোদন দেওয়া শুরু হবে এবং আগামী বছর নাগাদ দর্শকরা হলে বসে সিনেমা উপভোগ করতে পারবেন।
এক বিবৃতিতে তথ্যমন্ত্রী আওয়াজ আলওয়াদ বলেন, শিল্পটির নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে জেনারেল কমিশন ফর অডিও ভিজ্যুয়াল মিডিয়া সৌদি আরবে সিনেমার অনুমোদন দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে।
২০১৮ সালের মার্চের মধ্যেই প্রথম সিনেমা মুক্তি পাবে, এমনটিই প্রত্যাশা তার। তথ্যমন্ত্রী বলেন, এটি সৌদি আরবের সাংস্কৃতিক অর্থনীতির জন্য যুগসন্ধিক্ষণ। দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং বৈচিত্র্যের ক্ষেত্রে অন্যতম অনুঘটকের কাজ করে সিনেমা হল চালুর পদক্ষেপ। পাশাপাশি ওই সময় নাগাদ দেশে ৩০০ সিনেমা হল করার পরিকল্পনা রয়েছে। ধর্মীয়ভাবে রক্ষণশীল দেশ সৌদি আরবে এত দিন সিনেমা হল নিষিদ্ধ ছিল।

সৌদি নারীরা স্টেডিয়ামে যেতে পারবেন
সৌদি নারীরা আগামী বছর থেকে খেলা দেখার জন্য স্টেডিয়ামে যেতে পারবেন। তবে এর জন্য শর্তজুড়ে দেওয়া হয়েছে। শর্তটি হলোÑ সৌদি নারীদের ‘পরিবার বিভাগ’ নামে আলাদা একটি স্থানে বসতে হবে। স্টেডিয়ামে আগত পুরুষ দর্শকদের থেকে নারীদের আলাদা রাখার জন্য এ ব্যবস্থা করা হয়েছে।
ইনডিপেনডেন্টের খবরে বলা হয়েছে, আগামী বছর যখন থেকে সৌদি নারীরা স্টেডিয়ামে যাওয়া শুরু করবেন, তখন থেকেই এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানিয়েছে দেশটির ক্রীড়া কর্তৃপক্ষ। ‘পরিবার বিভাগ’ শুধু নারীদের জন্য। এখানে কোনো নারী দর্শকের সঙ্গে যাওয়া পুরুষের প্রবেশাধিকার থাকবে না। এখন যেমন কিছু রেস্তোরাঁয় নারী-পুরুষকে ভিন্ন লাইনে দাঁড়িয়ে ভিন্ন পথে ভেতরে ঢুকতে হয়, স্টেডিয়ামেও সেভাবে ঢোকার ব্যবস্থা করা হবে।
পর্যটন কেন্দ্রে নারীর জন্য বিনোদন ব্যবস্থা
সৌদি আরবের নারীদের ইসলামী বিধিনিষেধ মেনে চলতে হয়। সেই বিধিনিষেধের মধ্যেও কেউ কেউ মাঝে মাঝে নিয়ম ভেঙে খবরে শিরোনাম হন। কিন্তু এবার দেশটিতে এমন একটি পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলা হবে, যেখানে নারীরা বিকিনি পরতে পারবেন। সিনেমা, বিনোদন, থিয়েটার কোনো কিছুই বাদ যাবে না। নানা নিষেধাজ্ঞা পাশ কাটিয়ে এবার এক পর্যটন কেন্দ্র গড়ে উঠতে যাচ্ছে সৌদি আরবে। দেশটির নতুন যুবরাজ সে ঘোষণাই দিয়েছেন।
পর্যটন ব্যবসাকে জমজমাট করতে সৌদি আরব বড় ধরনের একটি পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। এর অংশ হিসেবে লোহিত সাগরের অন্তত ৫০টি দ্বীপ নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনা করছে দেশটি। পরিকল্পনা অনুযায়ী এসব দ্বীপ ও আরও কিছু জায়গায় তৈরি করা হবে বিলাসবহুল পর্যটন কেন্দ্র। তেলের দাম নিয়ে আগামী দিনের অনিশ্চয়তা মোকাবিলার জন্যই পর্যটন থেকে আরও বেশি অর্থ আয়ে আগ্রহী হয়ে উঠছে দেশটি।

সৌদি জোট ও কাতার সংকট
সৌদি জোট ২০১৭ সালের জুন মাসে কাতারের ওপর ‘সন্ত্রাসবাদে সমর্থন দেওয়ার’ অভিযোগ এনে দেশটির সঙ্গে কূটনৈতিক ও অন্যান্য সম্পর্ক ছিন্ন করে। উপসাগরীয় অঞ্চলের ছয়টি আরব দেশ কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কচ্ছেদের ঘোষণা দিলে এ সংকটের সৃষ্টি হয়। কাতারের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী এবং ইরানকে সমর্থন করার অভিযোগে এসব দেশ কাতারের সঙ্গে পরিবহন যোগাযোগ ছিন্ন করে। আরব বিশ্বের চারটি দেশ কাতারের কাছে তাদের ১৩টি দাবির একটি তালিকা পাঠিয়ে বলেছিল, এগুলো না মানলে তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হবে না। সৌদি আরব, মিশর, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং বাহরাইন কাতারের কাছে দাবি জানিয়েছিলÑ আলজাজিরার সম্প্রচার বন্ধ করতে হবে। কিন্তু আলোচনার মাধ্যমে এসব দাবির কোনো মীমাংসা করা যাবে না বলে জানিয়েও দিয়েছিল ওই আরব দেশগুলো। এখন পর্যন্ত এ সংকটের কোনো সুরাহা হয়নি।

হিজাবের বিধানে শিথিলতা
সৌদি আরবে নারীদের জন্য হিজাবে শিথিলতা আনা হয়েছে। সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের জেনারেল কোর্ট শর্ত নির্ধারণ করে দিয়েছে, মুখ ঢাকা নেকাবের বদলে মাথা ঢাকা হিজাবের শর্তানুযায়ী সাধারণ আদালতে আগমনকারী নারীদের শরিয়ত অনুমোদিত হিজাব (দেহ ঢাকার বস্ত্র) পরলেই হবে। এর মধ্য দিয়ে রিয়াদের জেনারেল কোর্ট চেহারা ঢেকে নারীদের কোর্টে আসার শর্ত প্রত্যাহার করে নিল। শুধু হিজাব পরে মাথা ঢাকলেই চলবে।
কয়েকদিন আগে রিয়াদের আদালতে এক মহিলা আইনজীবী জজের সামনে চেহারা খুলে মোকদ্দমা লড়তে আসেন। এ কারণে জজ তাকে আদালত থেকে বেরিয়ে যাওয়ার আদেশ দেন।
এতে আদালতপাড়ায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। পরে ওই মহিলা আইনজীবী উচ্চ আদালতের তত্ত্বাবধায়কের কাছে জজের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আইন মন্ত্রণালয়ের দেওয়া বিবৃতিতে মহিলা আইনজীবীকে বিভিন্ন ভুলে আক্রান্ত বলেও আখ্যা দিয়েছিল। অবশ্য হিজাব পরে চলাফেরার বিধি রয়েছে। সৌদি পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের গৃহীত ‘দ্য রেড সি’ প্রজেক্টে তা বিকিনিতে গিয়ে ঠেকলে অবাক হওয়ার কিছুই থাকবে না।

পপ গানের আয়োজন
সৌদি সংগীত জগতে পশ্চিমা কনসার্ট ও পপসংগীতের জোয়ার বইতে শুরু করেছে। এসেছেন ইয়ানি, নেলির মতো বিখ্যাত সংগীতশিল্পীরা। পাইপলাইনে আরও যারা আসবেন তাদের কনসার্টে উপচেপড়া সৌদি নারী-পুরুষ দর্শকের তালমাতাল উচ্ছ্বাস দেশটির সংস্কৃতিকে কোনদিকে পৌঁছাবে বলা মুশকিল।  ক্রাউন প্রিন্স বিন সালমান বলেছেন, বিনোদনের জন্য এমন আনন্দময় পরিবেশ তৈরি করতে, যাতে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার বিদেশে অপচয় না হয়ে দেশটিতেই খরচ হয়। উৎপাদনশীল অর্থনীতি, উদ্যোক্তা বিকাশের বাইরে পুঁজি ও মেধা থাকা সত্ত্বেও সৌদিরা তা পশ্চিমাদের হাতে তুলে দিয়ে ভোগের চোরাবালিতে নিমজ্জিত হচ্ছে কি?

সবচেয়ে বিলাসবহুল বাড়ি!
দুই বছর আগে বিক্রি হয়েছিল ফ্রান্সের শ্যাঁতু লুই ফোরটিন নামের একটি বিলাসবহুল প্রাসাদোপম বাড়ি। ফরচুন ম্যাগাজিন তখন সেটিকে বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বাড়ি বলে অভিহিত করেছিল।  ৫৭ একর জায়গার ওপর তৈরি এ বাড়ির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হলেও ২০১৫ সালে জানা যায়নি বাড়ির ক্রেতার নাম। তবে ২০১৭ সালে জানা গেছে ওই বাড়ি কিনেছিলেন সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান! সংবাদমাধ্যম দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের সাম্প্রতিক এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়েছে এ তথ্য। শ্যাঁতু লুই ফোরটিন নামের বাড়িটি ফ্রান্সের ভার্সাইয়ের কাছে অবস্থিত। বাড়িটির মূল্য ৩০ কোটি ডলার (প্রায় ২ হাজার ৪০০ কোটি টাকা)। ৫৭ একরের ল্যান্ডস্কেপে রয়েছে স্বর্ণপাতার ঝরনা, মার্বেলের ভাস্কর্য এবং আঁকাবাঁকা গাছের বেড়ার দেয়াল, যা গোলক ধাঁধার সৃষ্টি করে। প্রাসাদে রয়েছে চোখধাঁধানো সব অনুষঙ্গ।

ট্রাম্পকে ব্যাপক উপহার
প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম বিদেশ সফর ছিল সৌদি আরব। সফরে তিনি ব্যাপক উপহার পেয়েছেন সৌদি বাদশাহ সালমানের কাছ থেকে। জানা যাচ্ছে, বাদশাহর দেওয়া একগাদা উপহারের মধ্যে ছিল বিভিন্ন ধরনের তলোয়ার, ছুরি, চামড়ার তৈরি বুলেট রাখার বেল্ট, কোমরে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার হোলস্টার, সোনার কারুকার্যময় পোশাক, মাথায় ব্যবহারের অনেক স্কার্ফসহ আরব ঐতিহ্যবাহী গার্মেন্ট, চামড়ার জুতো, পারফিউম ও শিল্পকর্ম। তবে সৌদি বাদশাহ শুধু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকেই নয়, তার সফরসঙ্গী সবাইকেই একই ধরনের উপহার দিয়েছেন। তবে প্রেসিডেন্ট চাইলেই তার মনমতো উপহারগুলো নিজের কাছে রাখতে বা শিল্পকর্মগুলো তার অফিস বা বাসার দেয়ালে টানাতে পারবেন না।
যুক্তরাষ্ট্রের আইন অনুযায়ী বিদেশি সরকারের কাছ থেকে পাওয়া ৩৯০ ডলারের বেশি মূল্যমানের কোনো উপহার নিজের কাছে রাখতে পারেন না যুক্তরাষ্ট্রের সরকারের কেউ।

প্রিন্স-মন্ত্রীদের ধরপাকড়
সৌদি আরবে দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে ব্যাপক ধরপাকড় শুরু হয়েছে। দেশটির নতুন একটি দুর্নীতি দমন কমিটি ১১ জন প্রিন্স, চারজন বর্তমান মন্ত্রী এবং ডজনখানেক সাবেক মন্ত্রীসহ শতাধিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিকে আটক করেছে। বাদশাহ সালমান এক ডিক্রির মাধ্যমে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নেতৃত্বে নতুন এ কমিটি গঠনের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এ ধরপাকড় শুরু হয়। আটক ব্যক্তিদের মধ্যে সৌদি ধনকুবের প্রিন্স আল ওয়ালিদ বিন তালালও আছেন। জাতীয় গার্ডের প্রধানের পদ থেকে প্রিন্স মেতিব বিন আবদুল্লাহকে সরিয়ে খালেদ বিন আইয়াফকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আদেল আল ফাকিহকে অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে তার স্থলে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে ওই মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মোহাম্মদ আল তোইজরিকে। নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল আবদুল্লাহ বিন সুলতান বিন মোহাম্মদ আল সুলতানকেও বরখাস্ত করা হয়েছে।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT