১৫ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং | ৩০শে আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

সড়ক, নাকি মরণফাঁদ!

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৮, ১:০৩ অপরাহ্ণ


হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক যেন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। উপজেলার সীমানা শেরপুরের নিকট থেকে শুরু করে আরেক সীমান্ত এলাকা বাহুবল পর্যন্ত মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং উঠে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে।

সড়কের অধিকাংশ ব্রিজের প্রবেশ পথে বড় বড় ভাঙন দেখা দিয়েছে। একটু বৃষ্টি হলেই এসব গর্তে পানি জমে। এতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ায় অনেক সময় রাস্তা ভালো করে চেনা মুশকিল হয়ে ওঠে চালকদের কাছে। ফলে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। এমন অবস্থায় মহাসড়কে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হাজার-হাজার যাত্রী চলাচল করছে। জরুরি রোগীদের সিলেট ও বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে অনেক রোগী হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই মারা যান।

জানা যায়, প্রায় বছর খানেক ধরে রাস্তার এ বেহাল। মাঝে মধ্যে সড়কটি নামমাত্র মেরামত করা হলেও বর্তমানে নাজুক অবস্থায় রয়েছে। সড়কটিকে মনে হয় অভিভাবকহীন। খানা-খন্দ আর যত্রতত্র গর্তে পুরো রাস্তা মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। যাত্রীবাহী বাসসহ দেশি-বিদেশি পর্যটকবাহী গাড়ি ছাড়াও বিভিন্ন যানবাহন দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণে রাস্তার এমন অবস্থা হয়েছে বলে দাবি করছেন ভুক্তভোগীরা। কেউ কেউ বলছেন, বড় বড় ট্রাক চলাচলের জন্যই এমন অবস্থা।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মালবোঝাই ট্রাক, লরি, দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস, অ্যাম্বুলেন্সসহ বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করে। কিন্তু রাস্তা খারাপ হওয়ায় যান চলাচলে মারাত্মক বিঘ্ন ঘটছে। রাস্তাটি সংস্কারের জন্য মাঝেমধ্যে দেখা যায় কয়েকজন শ্রমিক দিয়ে কাজ করানো হয়েছে। তারা নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে নামমাত্র কাজ করার ফলে একদিকে কাজ হয়, অন্যদিকে আবারো কার্পেটিং উঠে গিয়ে পূর্বের অবস্থায় ফিরে যায়। মাস খানেক যেতে না যেতেই আবারো রাস্তায় গর্তসহ খানাখন্দে পরিণত হয়।

স্থানীয়রা জানায়, ৪-৫ মাস পূর্বে ভাঙা অংশগুলো মেরামত কাজ হয়েছে। কিন্তু মানসম্পন্ন কাজ না হওয়ায় ফের আগের অবস্থায় ফিরে গেছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সব সময় রাস্তা মেরামতের ব্যাপারে টালবাহানা ও কাজের প্রতি অবহেলা করে থাকেন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। তারা অবিলম্বে মহাসড়কের পুরনো কার্পেটিং ফেলে নতুন করে কার্পেটিং করে সড়কটিতে যাতায়াতকারীদের দুর্ভোগ লাঘবে ব্যবস্থাগ্রহণের দাবি জানিয়েছে।

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT