১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়ে শ্যালিকাকে বিয়ে, অতঃপর…

প্রকাশিতঃ মে ২১, ২০১৮, ৬:০৯ অপরাহ্ণ


পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার ধুলিয়া ইউনিয়নে ভালোবাসার টানে স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়ে অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া শ্যালিকাকে বিয়ে করেছেন ইমরান হোসেন (২৮) নামে এক যুবক।

স্থানীয়রা জানান, ধুলিয়া ইউনিয়নের চাঁদকাঠি গ্রামের মোটরবাইক চালক ইমরান হোসেন তিন বছর আগে পাশ্ববর্তী ভোলা সদর উপজেলার সেরাজ উদ্দিন চৌকিদারের মেয়ে রুনু বেগমকে (১৮) বিয়ে করেন। তাদের সংসারে আব্বাস নামের ৯ মাসের এক সন্তান রয়েছে। বিয়ের দুই বছর পর স্ত্রীর আপন ছোট বোন ও স্থানীয় একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী খালেদা আক্তার মিমের (১৪) সঙ্গে ইমরানের পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

গত ৫ মে স্ত্রী রুনু বেগমকে নিয়ে শ্বশুর বাড়ি বেড়াতে যায় ইমরান হাওলাদার। দুইদিন সেখানে বেড়ানোর পর শ্যালিকা মিমকে নিয়ে সে পালিয়ে যায়। ১৪ দিন বিভিন্ন জায়গায় পালিয়ে থাকার পর গতকাল শনিবার মিমকে নিয়ে গ্রামের বাড়ি চাঁদকাঠি চলে আসেন ইমরান হাওলাদার।

বিষয়টি জানাজানি হলে গ্রাম্য কয়েকজন মাতব্বরের পরামর্শের পর ওই রাতে শালিশ বৈঠক বসে ধুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার বারেক হাওলাদারের বাড়িতে। মধ্যরাত পর্যন্ত চলা বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় শ্যালিকাকে বিয়ে করতে হলে স্ত্রীকে তালাক দিতে হবে। এরপর ইমরান দীর্ঘ তিন বছরের সংসার জীবন ত্যাগ করে স্ত্রী রুনুকে তালাক দিয়ে মিমকে স্ত্রী হিসেবে গ্রহণ করেন।

এ বৈঠকে রুনু বেগম ছাড়াও তার দুই ভাই ও বেশ কয়েকজন স্থানীয় লোকজন উপস্থিত ছিলেন। এরপর ওই রাতেই নয় মাসের শিশু আব্বাসকে ছোট বোন মিমের কাছে রেখে রুনু বেগম ভাইদের সঙ্গে বাবার বাড়ি চর ভেদুরিয়া চলে যান।

স্থানীয় ইউপি সদস্য বারেক হাওলাদার বলেন, ‘তারা রাতে আমার বাড়িতে এসেছিল। বিষয়টি অমানবিক হওয়ায় আমি শালিস করতে সম্মত না হওয়ায় আমার বাড়ি থেকে চলে যায় তারা।’

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT