২২শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্ম হয়ে শুটিং ফেলে রাস্তায়

প্রকাশিতঃ আগস্ট ২, ২০১৮, ৬:১১ অপরাহ্ণ


পরিচালকের ডাকে আর মন সায় দিচ্ছে না অভিনয়শিল্পীদের। পরিচালক-প্রযোজকেরাও ঢাকার রাস্তায় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলন দেখে নিজেদের শুটিংয়ে আটকে রাখতে পারছে না। কিশোর-কিশোরী এসব শিক্ষার্থীর ডাকে নিরাপদ সড়কের দাবিতে সাড়া দিয়ে পরিচালক, প্রযোজক, অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলীরা এখন রাস্তায়।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করে আজ বৃহস্পতিবার সকালেও ঢাকার উত্তরায় মাসকট প্লাজার সামনে অবস্থান নেয় পরিচালক, প্রযোজক, অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলীদের একাংশ।

আজ দুপুর ১২টার দিকে শুটিং বন্ধ রেখে অভিনয়শিল্পীরা ঢাকার রাস্তায় অবস্থান নেন। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করে তাঁরা সবাই আবদুল্লাহপুর থেকে আজমপুর বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত প্রদক্ষিণ করেন। দেড় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে রাস্তায় অবস্থান নেওয়া শিল্পী ও কলাকুশলীরা এ সময় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন। তাদের প্রতি নিজেদের সমর্থনের কথাও জানান।

পরিচালকদের পক্ষে সকাল আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা যে আন্দোলন করছে, এটা আমাদের সবার চাওয়া। এ দেশের সাধারণ জনগণের চাওয়া। দেশের নাগরিক হিসেবে আমরাও এসবের বাস্তবায়ন চাই। আমরা হয়তো রাস্তায় নেমে এত দিন বলতে পারিনি, এই তরুণ শিক্ষার্থীরাই আমাদের করে তা দেখিয়ে দিয়েছে। এসব শিক্ষার্থীকে স্যালুট।’

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে পরিচালক সাগর জাহান বলেন, ‘আমরাও আছি তোমাদের সঙ্গে।’

বৃষ্টিতে ভিজে রাস্তায় বসে আন্দোলনে অংশ নেওয়া পরিচালক ও অভিনয়শিল্পীরা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে নানা রকম স্লোগান দেন। নির্মাতা সাজ্জাদ সুমন বলেন, ‘নিরাপদ সড়কের দাবিতে যে আন্দোলন চলছে, তার সঙ্গে সংহতি প্রকাশের জন্য উত্তরা হাউস বিল্ডিং চৌরাস্তায় মিলিত হয়েছি শিল্পী, কলা-কুশলীরা।’

অভিনেতা লুৎফর রহমান জর্জ, রওনক হাসান, মিশু সাব্বির, অভিনেত্রী নাদিয়া আহমেদ, সাবেরী আলম, মনিরা মিঠু, অর্ষা, পরিচালক অরণ্য আনোয়ার, সকাল আহমেদ, সাগর জাহান, চয়নিকা চৌধুরী, সাফায়েত মনসুর রানাসহ অনেকেই আজ সকাল থেকে আছেন উত্তরার রাস্তায়, অংশ নিচ্ছেন আন্দোলনে। অভিনেত্রী মনিরা মিঠু বলেন, ‘আমি আছি আমাদের রক্তাক্ত বাচ্চাদের পাশে রাজপথে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী পরিচালক মাসুদ হাসান উজ্জ্বল। ছাত্র থাকা অবস্থায় বহু আন্দোলন-সংগ্রামের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনেও নিজেকে ঘরে রাখতে পারেননি। বেরিয়ে পড়েছেন বাসা থেকে। তিনি বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র হওয়ার কারণে আন্দোলন মানেই শাহবাগ ভাবার একটা বদ অভ্যাস তো আছেই। সুতরাং শাহবাগের দিকেই রওনা দিয়েছি। কোথাও কোনো বিক্ষোভ নেই! কিন্তু পরিবর্তন সুস্পষ্ট। গাড়িগুলো সারিবদ্ধভাবে এগোচ্ছে। স্কুল ইউনিফর্ম পরা আমাদের খুদে অভিভাবকেরা বৃষ্টিতে ভিজে অত্যন্ত দায়িত্বশীলতার সঙ্গে প্রতিটি গাড়ির কাগজপত্র দেখছে। সবাই অত্যন্ত ভক্তিভরে তাদের লাইসেন্স প্রদর্শন করছেন। এমনকি ট্রাফিক সার্জেন্টকেও দেখলাম তাদের সঙ্গে সহকর্মীর মতো আচরণ করছেন! তারুণ্যের এমন শক্তি পৃথিবীর কোনো প্রান্তে আর কেউ প্রত্যক্ষ করেছেন বলে আমার অন্তত জানা নেই!’

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০, সার্কুলেশন বিভাগঃ০১৯১৬০৯৯০২০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT