২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

শিক্ষার্থীদের দায়িত্ব নেওয়ার কথা বললেন প্রধান শিক্ষকেরা

প্রকাশিতঃ আগস্ট ৩, ২০১৮, ৭:৫৭ অপরাহ্ণ


শিক্ষার্থী আন্দোলন পরিস্থিতি নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান এবং পরিবহনের মালিক ও শ্রমিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক। বৈঠকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানেরা নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সামলাবেন বলে জানিয়েছেন। অন্যদিকে পরিবহনের মালিক ও শ্রমিকেরা বলেছেন, আন্দোলনের নামে ‘নৈরাজ্য’ বন্ধ না হলে তাঁরা সড়কে বাস নামাবেন না।

আজ শুক্রবার সকালে জেলা প্রশাসনের সম্মেলনকক্ষে জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে এ বৈঠক হয়। এতে জেলার মালিক ও শ্রমিক নেতা-কর্মী ও জেলার প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকেরা অংশ নেন।

সভায় মালিক ও শ্রমিকনেতাদের অভিযোগ, ঢাকায় পরিবহন ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেই চলেছে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। তারা আন্দোলনের নামে চালকদের হয়রানি করছে। পুলিশ, সচিব এমনকি মন্ত্রীকেও তারা হেনস্তা করছে, যা আন্দোলনের নামে নৈরাজ্য। এসব বন্ধ না হলে তাঁরা সড়কপথে কোনো যাত্রীবাহী বাস নামাবেন না।
সভায় জেলা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমরাও নিরাপদ সড়ক চাই। আমরা দুর্ঘটনা এড়াতে সব ধরনের পদক্ষেপ নিতে চাই। কিন্তু আমরাও দেশে বিভিন্ন প্রকার হয়রানির শিকার। ট্রাফিক পুলিশ থেকে শুরু করে বিআরটিএ—সব ক্ষেত্রেই আমাদের হয়রানির শিকার হতে হয়। একজন চালককে লাইসেন্স নিতে হলে দুবছর সময় ধরে অপেক্ষা করতে হয়। আমরা আমাদের নিরাপত্তার স্বার্থে বাস চলাচল বন্ধ রেখেছি। এসব সমাধান না হওয়া পর্যন্ত আমাদের ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হবে না।’

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকেরা সভায় জেলা প্রশাসনকে জানায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা তাঁদের কাছে আন্দোলনে যোগ দেওয়ার ইচ্ছার কথা জানিয়েছে। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষার্থীদের রাজপথে নেমে আন্দোলন করতে নিষেধ করা হয়েছে। ছাত্ররা যেন কোনো ধরনের আন্দোলনে না জড়াতে পারে, সে দিকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো নজর রাখবে। প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানেরা তাদের নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের দায়িত্ব নেওয়ার কথা জানান।

বৈঠকে সরকারি ডনোভান বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রতন কুমার খান বলেন, ‘আমাদের কাছে অনেক শিক্ষার্থী আন্দোলন করার অনুমতি চেয়েছে। আমরা তাদের কোনো প্রকার অনুমতি দিইনি। তাদের আন্দোলন করতে নিষেধ করেছি। বলেছি, সরকার তোমাদের দাবি মেনে নেবে।’

সারা দেশের মতো মাদারীপুর থেকেও দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন পরিবহনের মালিক ও শ্রমিকেরা। সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেছেন শ্রমিক ইউনিয়নের নেতা-কর্মীরা।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT