১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

লক্ষাধিক মানুষের উপস্থিতিতে জানাজা সম্পন্ন করে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হলো ৪ মেধাবী ছাত্রকে

প্রকাশিতঃ জুলাই ১৬, ২০১৮, ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ


মোঃ নুরুল হোসেন (কক্সবাজার প্রতিনিধি) – জন্মিলে মরিতে হবে এটাই নিয়তি।কিন্তু কিছু মৃত্যু মনকে বুঝানো বড়ই কঠিন তেমনি কক্সবাজারের চকরিয়ায়,কক্সবাজার চট্টগ্রাম মহাসড়কের মাতামুহুরী নদীর ব্রীজের নীচে ফুটবল খেলা শেষে গোসল করতে গিয়ে নদীর জলে তলিয়ে যাওয়া ৫ শিক্ষার্থীর মধ্যে চারজনের জানাযায় লক্ষাধীক শোকাহত মানুষের সমাবেশ ঘটেছে।
১৫ জুলাই (রবিবার)সকাল ১১ ঘটিকার সময় মাতামুহুরী ব্রীজ সংলগ্ন বালুর চরে চারজন শিক্ষার্থীর জানাজা একত্রে অনুষ্টিত হয়। জানাজা শুরুর কমপক্ষে ২ ঘণ্টা পূর্বে থেকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে যান চলাচল প্রায়ই বন্ধ হয়ে যায়। পুরো কক্সবাজার জেলার শোকাহত লক্ষাধীক মানুষ চার শহিদের জানাজায় অংশ নেয়ার জন্য ছুটে আসেন মাতামুহুরী নদীর বালুর চরে। জানাযা স্থলের চারদিকে মানুষ আর মানুষ। বর্তমানে পুরো জেলায় চলছে শোকের মর্মবাণী। জানাগেছে,চকরিয়া মাতামুহুরী নদীতে একসাথে ৫ জন শিক্ষার্থীর সলিল সমাধি এর পূর্বে আর ঘটেনি।
এদিকে তাদের পরিবারে চলছে কান্নার আহাজারী। তাদের পিতা-মাতা কিছুক্ষণ পরপর অজ্ঞান হয়ে পড়ছেন। তাদেরকে শান্তনা দেওয়ার জন্য ছুটে আসছেন পুরো উপজেলার নারী-পুরুষ।
জানাজায় অংশ নিতে ছুটে আসে চকরিয়া উপজেলা প্রশাসন,চকরিয়া থানার কর্মকর্তাবৃন্দ,চকরিয়া পৌর প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী,বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী সহ সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা।
জানাজার পূর্বে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইলিয়াছ, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়মীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম, চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুদ্দীন মো. শিবলী নোমান, চকরিয়া পৌরসভার চেয়ারম্যান আলমগীর চৌধুরী, চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বখতিয়ার উদ্দীন চৌধুরী,কক্সবাজার জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম লিটু সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানশিক্ষক ও অধ্যক্ষ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন পত্রিকার সংবাদিকবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
জানাজায় ইমামতি করেন বিশিষ্ট আলেমদ্বীন চিরিংগা সোসাইটি জামে মসজিদের খতিব মাওলানা কফিল উদ্দীন ফারুখী।
উল্লেখ্য, গত ১৪ জুলাই চকরিয়া গ্রামার স্কুলের ৫ জন ছাত্র বিকাল ৪:০০ টার সময় স্কুলের ক্লাস শেষ করে ফুটবল খেলতে যায় মাতামুহুরী ব্রীজ পয়েন্টে। খেলার এক পর্যায়ে বল পড়ে যায় পানিতে। এক শিক্ষার্থী বলটি নেয়ার জন্য লাফ দেয় পানিতে। কিন্তু হঠাৎ তার চিৎকার শুরু হয়। তাকে উদ্ধার করার জন্য পানিতে লাফ দেয় আরো ৫ জন শিক্ষার্থী। যাকে উদ্ধার করার জন্য অন্য ৫ জন নদীর পানিতে লাফ দেয় তারা মৃত্যুর টিকেট পেয়ে যায় ভাগ্যক্রমে সে জীবনে বেঁচে যায়।
এদিকে মুহুর্তের মধ্যে তাদের নিখোঁজের খবর পুরো এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। হাজার হাজার মানুষ তাদেরকে উদ্ধার করার জন্য নদীর তীরে ছুটে আসে।চকরিয়া উপজেলা প্রশাসন, থানার কর্মকর্তা, পৌর প্রশাসন সহ সবাই মুহুর্তের মধ্যে মাতামুহুরী নদীর তীরে চল আসে। কিন্তু কারো সন্ধান না পেয়ে চকরিয়া ফায়ার সার্ভিসের দলকে খবর দেয়। ফায়ার সার্ভিস তাদের দল নিয়ে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করে। তারা বিকাল ৫ টা থেকে রাত ১২ টা পর্যন্ত একটানা ৭ ঘণ্টা চেষ্টা করার পর ৫ শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করে।
জানা গেছে, মৃত্যুবরণকারী ৫ জন শিক্ষর্থী সবাই চকরিয়া গ্রামার স্কুলের ৮ম ও ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে একজন চকরিয়া গ্রামার স্কুলের অধ্যক্ষের ছেলে , একই স্কুলের জলি ম্যাডামের ছেলে একজন,  আনোয়ার শফিং কমপ্লেক্সের মালিক আনোয়ারের ছেলে দুইজন, অপর জন হলো শওকত হোসনের ছেলে। ৫ জনের মধ্যে ৪ জন মুসলিম ও ১ জন হিন্দু (জলি ম্যাডামের ছেলে) রয়েছে। জলি ম্যাডামের বাড়ি কক্সবাজার হওয়ায় তাঁর ছেলের মৃতদেহ কক্সবাজার নিয়ে যাওয়া হয়।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০, সার্কুলেশন বিভাগঃ০১৯১৬০৯৯০২০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT