২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে এশিয়ার দেশগুলোর সহযোগিতার আহ্বান

প্রকাশিতঃ আগস্ট ২৯, ২০১৮, ৭:৩২ অপরাহ্ণ


রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠিকে নিজে দেশে ফেরত পাঠাতে এশিয়ার দেশগুলোর কাছে সহায়তা চাইলেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ভিয়েতনামের হ্যানয়ে ভারতীয় মহাসাগর সম্মেলন-২০১৮ এ অংশ নিয়ে তিনি এ আহ্বান জানান।

কামাল বলেন, যখন আমরা একতা ও পারস্পারিক সহযোগিতার কথা বলছি, ঠিক তখন বাংলাদেশ পার্শ্ববর্তী বন্ধুপ্রতিম দেশ মিয়ানমার কর্তৃক সৃষ্ট রোহিঙ্গা উদ্বাস্তু নামক গুরুতর একটি সমস্যায় পর্যবসিত। তিনি সব অংশগ্রহণকারী দেশের প্রতিনিধিদের আন্তরিকভাবে অনুরোধ করেন, তারা অবশ্যই অন্যায়ের প্রতিবাদ করবেন যাতে রোহিঙ্গারা সম্মানের সঙ্গে তাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে দ্রুত ফিরে যেতে পারে।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা গাজী তৌহিদুল ইসলামের পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দিল্লি ভিত্তিক থিঙ্কট্যাংক ইন্ডিয়ান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে তৃতীয়বারের মতো দুদিন ব্যাপী ‘ভারতীয় মহাসাগর সম্মেলন-২০১৮’ আয়োজিত হয়েছে। বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও সিঙ্গাপুর আয়োজন সংগঠনের পার্টনার। পূর্বের দুটি সম্মেলন হয়েছে সিঙ্গাপুর ও শ্রীলঙ্কায়। বাংলাদেশের পক্ষে এ সম্মেলনে নেতৃত্ব দেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ষাটের অধিক দেশের সরকারি-বেসরকারি বিশিষ্টজনরা এ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন।

দ্বিতীয় দিনে মন্ত্রী পর্যায়ের সেশনে পরিকল্পনামন্ত্রী বক্তব্য প্রদান করেন। এই সেশনে শ্রীলঙ্কার যুবমন্ত্রী সাগালা বাতানায়েকে, মরিশাসাসের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিতানাহ লুচিমিনারাইডো এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশমন্ত্রী থানি বিন আহমেদ আল-জিউওদি বক্তব্য দেন।

মন্ত্রী বলেন, যখন বিশ্ব একটি বিশ্বায়ন বিরেুদ্ধ তথাকথিত ‘বাণিজ্য যুদ্ধ’-এর হুমকির সম্মুখীন, এমন একটি উপযুক্ত সময়ে ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলো নিয়ে এ সুন্দর সম্মেলন আয়োজনের জন্য ভিয়েতনাম সরকারসহ ইন্ডিয়ান ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি আমেরিকার ১৯২৯ সালের স্মুথ হলির রক্ষণশীল ট্যারিফ পদ্ধতির কথা উল্লেখ করে বলেন, যেখানে ২০,০০০ এর ও বেশি দ্রব্যের উপর আমেরিকার কৃষি ও ব্যবসাকে রক্ষার জন্য শতকরা ৫০ ভাগের উপরে শুল্ক আরোপ করা হয়। পরিণামে এটি তখন বিশ্ব বাণিজ্যকে ৬৬ শতাংশ সংকুচিত করে সারা বিশ্বে মহামন্দা সৃষ্টি করে।

তিনি বলেন, বিশ্ব অতীত থেকে শিক্ষা গ্রহণ করবে এবং এই তথাকথিত ‘বাণিজ্য যুদ্ধ’ প্রতিহত করবে যাতে করে এটি বেশি দিন স্থায়ী হতে পারবে না। পাশাপাশি তিনি এই অঞ্চলের সব দেশকে বাণিজ্য যুদ্ধের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে সচেতন হওয়ার আহ্বান করে দক্ষিণ-দক্ষিণ বাণিজ্য পরিধি বৃদ্ধির পরামর্শ প্রদান করেন, যাতে করে বিশ্বায়নের অস্থিত্ব টিকে থাকবে। আমাদেরকে অবশ্যই একসঙ্গে চলার নীতি অনুসরণ করতে হবে।

কামাল বলেন, ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চল অর্থনৈতিক, সংস্কৃতি ও সামাজিকসহ বহুবিদভাবে অত্যন্ত সমৃদ্ধশালী। কিন্তু এই সম্পদ তখনই প্রকৃত সম্পদে পরিনত হবে যখন সম্পদের যথার্থ ন্যায়সঙ্গত ও দক্ষতার সঙ্গে ব্যবহার নিশ্চিত করা হবে, যদিও এটি একটি কঠিন কাজ।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT