২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ১১ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

মহামারি ঠেকাতে ফেসবুক

প্রকাশিতঃ জানুয়ারি ৫, ২০১৮, ৮:১৮ অপরাহ্ণ


সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক এবং টেলিফোন রেকর্ড ব্যবহারে করে মহামারি রোধ করা যেতে পারে। গবেষণার পর এ কথা জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

গবেষকদের মতে, কোনো রোগ মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ার উপক্রম হলে তা ঠেকাতে বিশ্বজুড়ে সবাইকে টিকা দেওয়া সম্ভব হয় না। কিন্তু ফেসবুকের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এবং টেলিফোন রেকর্ড পর্যবেক্ষণ করে কিছু মানুষকে চিহ্নিত করা যায়, যাঁরা এসব সামাজিক মাধ্যমে কেন্দ্রীয় চরিত্রে থাকেন। বাস্তব জীবনেও তাঁরা তাঁদের গণ্ডির মধ্যে বা সমাজে একই ধরনের ভূমিকায় থাকেন। সমাজে বা রাষ্ট্রের বিভিন্ন সম্প্রদায় ও গোষ্ঠীর মধ্যে তাঁদের যাতায়াত এবং যোগসূত্র হিসেবে কাজ করেন তাঁরা। তাঁদের ঘিরে আবর্তিত হয় বহু মানুষের চলাফেরা। কাজেই এ ধরনের কেন্দ্রীয় চরিত্রের কিছু মানুষকে যদি দ্রুত টিকা দিয়ে দেওয়া যায়, তাহলে সম্ভাব্য মহামারি ঠেকানো যেতে পারে। কারণ, তাতে রোগের জীবাণু এক গোষ্ঠী থেকে আরেক গোষ্ঠী বা সম্প্রদায়ে ছড়িয়ে পড়ার যোগসূত্রটা নষ্ট করা যায়।

জার্নাল অব দ্য রয়াল সোসাইটি ইন্টারফেসে গত বুধবার প্রকাশিত গবেষণা নিবন্ধ এমনই মতামত দিয়েছেন। গবেষণাটি করা হয়েছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থীর ওপর। সেখানেও দেখা গেছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বা ডিজিটাল জগতে যাঁরা কেন্দ্রীয় চরিত্রে আছেন, বাস্তব জীবনেও তাঁদের উপস্থিতি একই রকম।

গবেষণা নিবন্ধের সহলেখক ডেনমার্কের টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষক এনিস মোনেস বলেন, ‘যদি আপনি বন্ধুদের কাছে আগ্রহের কেন্দ্রে থাকেন, যেমন ফেসবুকে আপনার সঙ্গে সংযুক্ত অনেক মানুষ এবং আপনার কাছে ফোন নম্বর রয়েছে। তাহলে বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর মধ্যে মহামারি ছড়ানোর ক্ষেত্রে আপনার এই সামাজিক অবস্থান সেতুবন্ধ হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে। অর্থাৎ আপনার মাধ্যমেই এক সম্প্রদায় থেকে আরেক সম্প্রদায়ে ছড়াতে পারে রোগের জীবাণু।’

কাজেই টিকাদানের জন্য সম্পদ যখন সীমাবদ্ধ, তখন সবাইকে টিকা না দিয়ে এমন কেন্দ্রীয় চরিত্রের মানুষগুলো টিকা দিতে পারলে মহামারির বিস্তার রোধ করা যেতে পারে। প্রযুক্তি ব্যবহার করে এসব মানুষকে চিহ্নিত করাও খুব ব্যয়সাপেক্ষ এবং কঠিন কিছু নয়।

এ ধরনের টিকাদানে উদ্দেশ্য সংক্রমণের ঝুঁকিতে থাকা মানুষের সংখ্যা কমিয়ে আনা। কেননা এতে করে টিকা দেওয়া হয়নি, এমন লোকজনের সঙ্গে সংক্রমিত মানুষের যোগাযোগের সুযোগ কমে আসে।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT