১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

ভূমিদস্যু আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের খুঁটির জোর কোথায়

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৫, ২০১৮, ৭:১৪ অপরাহ্ণ


আশুলিয়া মডেল টাউনের মধ্যে সরকারি খাস জমি অবৈধভাবে দখল করে রেখেছে বলে ভূক্তভোগীদের অভিযোগ রয়েছে আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের বিরুদ্ধে। আশুলিয়া মডেল টাউনের জমি বিক্রি করার পরেও ক্রেতাদের জমির দলিল ও দখল বুঝিয়ে দিচ্ছে না বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়। এছাড়াও আমিন মোহাম্মদ গ্রুপ ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির নিকট ৪ (চার) একর সরকারি জমি জালিয়াতির মাধ্যমে বিক্রি করে ক্রেতাদের সাথে প্রতারণা করেছে বলেও জানা যায়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভুক্তভোগী জানান, আশুলিয়া মডেল টাউন এর জায়গা ক্রয় করে এখনও দখল বুঝে পাননি এবং দলিল বুঝিয়ে দেয়ার ব্যাপারে বিভিন্ন তালবাহানা করে ঘোরাচ্ছেন। জনাব মালেক জোমাদ্দার নামে এক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এ প্রতিবেদকের নিকট আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের নামে অভিযোগ করে বলেন, তিনিও আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের কাছে থেকে আশুলিয়া মডেল টাউনের জমি কিনে প্রতারণার শিকার হয়েছেন।
তিনি আরো বলেন, জমির দখল এবং দলিল বুঝিয়ে দেবে বলে ২০১০ সাল থেকে বিভিন্ন তালবাহানা করে কালক্ষেপন করছেন। আশুলিয়া মডেল টাউনের প্রতারণার ঘটনা এখানেই থেমে নেই। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের এই প্রতারণা চক্রটি বিশাল আকার ধারন করেছে। জনাব সৈয়দ নুরুল হুদা রনো সহ মোট ২০ জন এর পৃথক পৃথক আবেদনের প্রেক্ষিতে দখল থাকায় বিভিন্ন সময় ভূমি মন্ত্রণালয়, ভূমি সংস্কার বোর্ড কর্তৃক বিভিন্ন তারিখে মোট ৩ একর জমিলিজ প্রদান করেন।
তিন একর জমির তাতে এক একর জমি বরাদ্দের স্মারক নং- ৩১.০২.০০০০.০৩৪.২৬.০২৯.১৮-৩৩৭ তারিখ: ০৮/০৭/২০১৮ পত্র দ্বারা লিজ বরাদ্দের অনুমতি প্রাপ্ত হয়ে তারা আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক লি: মতিঝিল কর্পোরেট শাখার পে অর্ডার নং-৩২৭৬১১০ তারিখ: ১২/০৭/২০১৮ এর মাধ্যমে টাকা জমা দেয় বিধায় বই নং-১১৬, রশিদ নং- ১১৫৪৭, ১১৫৪৮, ১১৫৪৯ এবং ১১৫৫০ নং লিজ মানি পরিশোধের রশিদ ভূমি সংস্কার বোর্ড প্রদান করে। স্মারক নং- ৩২.০২.০০০০.০৩৪.৩৪.২৬.০২৯.১৮-৩৬৭/৬৮/৩৬৯/৩৭০ তারিখ: ১৬/০৭/২০১৮ নং পৃথক পৃথক চারটি দলিল সম্পাদন করে দেয়। লিজসূত্রে প্রাপ্ত দখলীয় ভূমির তফসিল- জেলা: ঢাকা, থানা: সাভার, ৬২৩ নং মৌজা খাগান, সি এস খতিয়ান নং-০১, সি এস দাগ নং- ১৪৪, ১৪৮ ও ১৪২।
চৌহদ্দী: খাগান বাস স্ট্যান্ড থেকে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটিতে যাওয়ার সরকারি রাস্তা সংলগ্ন মা মঞ্জিল থেকে সামনের রাস্তার দুই পাশের অংশ। সৈয়দ নুরুল হুদা সহ লিজ গ্রহণকারী কয়েকজন ১৬/০৭/২০১৮ তারিখ সোমবার, বেলা আনুমানিক ০২ (দুই) টায় লিজ প্রাপ্ত জমিতে গেলে, লিজ প্রাপ্ত হওয়ার খবর জানাজানি হলে লিজকৃত জমিতে এসে আশুলিয়া মডেল টাউন ওরফে আমিন মোহাম্মদ ল্যান্ডস্ ডেভেলপমেন্ট লি: নামক কোম্পানির অজ্ঞাতনামা কতিপয় সিকিউরিটি বাহিনী বন বিভাগের কতিপয় কর্মকর্তাদেরকে সাথে নিয়ে এসে ভয় ভীতি ও হুমকি-ধামকি প্রদর্শন করে বলে যে, ‘আমরা তোদের বৈধ লিজকৃত সম্পত্তি হতে উচ্ছেদ করে বেদখল দেবো। জোরপূর্বক বন বিভাগের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের সহযোগিতায় লিজ গ্রহণকারীদের মারধর করে সম্পত্তি হতে বের করে দিয়ে অবৈধভাবে তারা স্থাপনা নির্মাণ করবে বলেও পায়তারা চালাচ্ছে এবং লোকজনের নিকট বলা বলি করছে।’
এ বিষয়ে জিডিতে লিজ গ্রহণকারীদের পক্ষে সৈয়দ নুরুল হুদা উল্লেখ করেন, ‘সরকারের কাছ থেকে সম্পত্তি লিজ গ্রহণ করে এখন নিজেদের জান মালের অপূরণীয় ক্ষতি হবার শঙ্কার মধ্যদিয়ে দিনাতিপাত করছি। এমনকি লিজকৃত জমিও বেদখল হবার আশঙ্কা বিদ্যমান রয়েছে।’ এই বিষয়ে সাভার মডেল থানায় সাধারণ ডাইরী করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
উক্ত বিষয় নিয়ে সৈয়দ নুরুল হুদা বাদী হয়ে মাননীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বরাবর আবেদন করে অনুলিপি দিয়েছেন পুলিশ সুপার, ঢাকা কে প্রেরণ করেন। বর্ণিত ঘটনার সত্যতা জানার জন্য দৈনিক আলোকিত প্রতিদিন এর নিউজ এডিটর অফিসিয়াল ফোন: ৯১১৯০০২ হতে আমিন মোহাম্মদ গ্রুপ এর ধানমন্ডিস্থ কর্পোরেট অফিসের ফোন: ৫৮১৫৫১০১ এ একাধিকবার যোগাযোগ করেও প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান জনাব এম এম এনামুল হক এর সঙ্গে কথা বলতে পারেননি।
এক পর্যায়ে আমিন মোহাম্মদ গ্রুপ হতে জনাব গাজী আহমদ উল্লাহ মিডিয়া প্রধান যার মোবাইল নং- ০১৭১৩০৬৪৩৪৭ এ যোগাযোগ করলে এ সংবাদের সত্যতা সম্পর্কে কোন সদোত্তর না দিয়ে তিনি পাশ কাটিয়ে যান। তিনি সরকারি জমি আশুলিয়া মডেল টাউনের মধ্যে জোরপূর্বক দখল করে রেখেছেন কি না এ প্রশ্নের উত্তর দেয়ার জন্য ২ (দুই) দিনের সময় নেন। মূলত আশুলিয়া মডেল টাউনের অধিকাংশ জায়গা সি এস এবং বি এস রেকর্ড মূলে মালিক হচ্ছে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে- ভূমি মন্ত্রণালয়, ভূমি সংস্কার বোর্ড, কোর্ট অব ওয়ার্ডস, ঢাকা নওয়াব এস্টেট-১৪১-১৪৩ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০ হবার পরেও আশুলিয়া মডেল টাউন জোর জবরদস্তি করে সরকারের খাস সম্পত্তি দখল করে বসে আছেন।
এলাকার সাধারণ জনগণ তার ভয়ে সদা তটস্থ্য, তার নাকি টাকা দিয়ে পালা গুন্ডা বাহিনী ও সিকিউরিটি বাহিনী রয়েছে। এ প্রতিবেদককে খাগান এলাকার নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ব্যক্তি বলেন, প্রকৃত বিচারে আশুলিয়া মডেল টাউন দীর্ঘদিন যাবৎ সরকারি সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করে রেখেছে এতে ভাবতে হবে তাদের খুঁটির জোর কোথায়।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০, সার্কুলেশন বিভাগঃ০১৯১৬০৯৯০২০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT