১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩রা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

ব্রায়ান্ট পার্কে ব্রডওয়ে শো

প্রকাশিতঃ আগস্ট ৪, ২০১৮, ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ


ম্যানহাটনের নিউইয়র্ক পাবলিক লাইব্রেরিতে বই জমা দিতে গিয়েছিলাম ২৬ জুলাই। হাতে কিছু সময় ছিল। পাশেই ব্রায়ান্ট পার্ক। ফেসবুকের ইভেন্ট পেজে দেখেছি, সামারে প্রতি বৃহস্পতিবার সেখানে ব্রডওয়ে শো হয়। লাইব্রেরি থেকে বের হয়ে হাঁটতে শুরু করলাম ব্রায়ান্ট পার্কের দিকে। সময়টা লাঞ্চ বা মধ্যাহ্ন ভোজের।

আমেরিকানরা সাধারণত সাড়ে বারোটা থেকে একটার মধ্যে দুপুরের খাবার সেরে নেয়। তারা সামারে খোলা আকাশের নিচে লাঞ্চ করতে ভালোবাসে। চওড়া ফুটপাত থেকে সিঁড়ি বেয়ে পার্কের মাটিতে পা রাখতেই উচ্চশব্দে গানের আওয়াজ কানে এল। চারদিকে মানুষ আর মানুষ। বাম দিকে একটা রেস্তোরাঁয় কেজো লোকেরা লাঞ্চ করছে। কেজো লোক মানে যাঁরা আশপাশে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কাজ করে। দুপুরের লাঞ্চ বিরতিতে এখানে এসেছে তারা।

তবে সামনে এগোতে শুরু করলে আমার মতো অকাজের লোকের সন্ধান পেলাম। বিশাল মঞ্চের সামনে পুরো মাঠজুড়ে তারা চেয়ার পেতে বসে আছে। যারা বসার চেয়ার পায়নি তারা মাঠের ঘাসের ওপর বসেছে। কেউ কেউ দাঁড়িয়ে আছে। সবার চোখ মঞ্চের দিকে। হাতে সবার হাত পাখা। আয়োজকরাই সরবরাহ করেছে। দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে সূর্য যখন মধ্যগগণে, সবাই রোদে পুড়ে তামা। অবশ্য এ দেশিরা সেটাই পছন্দ করে।

গ্রীষ্মের সময়টা এই দেশিদের কাছে রীতিমতো উৎসবের। কারণ বছরের বেশি সময় বরফের আস্তরণে ঢাকা পড়ে থাকে এই পার্ক, পথ ঘাট। সামারকে ঘিরে তাই নানা আয়োজন থাকে। যার একটি ব্রায়ান্ট পার্কে ব্রডওয়ে শো। ১০৬ দশমিক সাত এফএম রেডিও ছিল এই শোয়ের আয়োজক। যারা ‘মিউজিক্যাল থিয়েটার’ ভালোবাসে তাদের জন্য ব্রডওয়ে ইন ব্রায়ান্ট পার্ক কনসার্ট সিরিজ হলো চলতি গ্রীষ্মের সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয়। কারণ এখানে খোলা মঞ্চে, টিকিট ছাড়া ব্রডওয়ে মিউজিক্যালের সেরা শোগুলো দেখা যায়। ব্রডওয়ে শোও থাকে। ১০৬ দশমিক সাত এফএফ রেডিওর বিভিন্ন পারফরমার থাকেন।

অনেকে কাঁথা-কম্বল নিয়েও পার্কে আসে লম্বা সময়ের জন্য। ঘাসের ওপর কম্বল পিছিয়ে শুয়ে থেকে ব্রডওয়ে শো দেখে। আর মনে মনে ভাবে, আহারে এর চেয়ে সুখের কী আছে জীবনে! ১২ জুলাই বৃহস্পতিবার প্রথম শো হয়েছে। তারপর থেকে প্রতি বৃহস্পতিবার চলছে। শেষ হবে ১৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার। পারফরমেন্স শুরু হয় দুপুর সাড়ে বারোটায়। আর এক ঘণ্টার মধ্যে শেষ হয়ে যায়।

কেউ যদি জায়গাটা চিনতে না পারেন, তবে বলছি ব্রায়ান্ট পার্কের পশ্চিমদিকে এই স্টেজটি নির্মাণ করা হয়েছে। আর জায়গাটা সিক্সথ অ্যাভিনিউ’র ফোরটি ও ফোরটি টু স্ট্রিটের মাঝখানে। এই শো দেখার জন্য টিকিটের প্রয়োজন না থাকলেও যে আগে আসবে সে মঞ্চের তত কাছে বসার সুযোগ পাবে। বেলা এগারোটায় লন খুলে দেওয়া হয় বসার জন্য। তবে এই শো আবহাওয়া খারাপ থাকলে বাতিল হয়ে যেতে পারে। ২ আগস্ট শোয়ে ছিল আলাদীন, ফ্রোজেন ও দি লায়ন কিং শোয়ের গান। ৯ আগস্ট থাকবে অ্যানাস্তাশিয়া, অ্যাভিনিউ কিউ, জার্সি বয়েজ, স্মোকি জো’স কাফে ও দ্যা ডোনা সামার মিউজিক্যালের শো। ১৬ আগস্ট থাকছে বি মোর চিল, গেটিং দ্য ব্যান্ড ব্যাক টুগেদার, ওয়ান্স অব দিজ আইল্যান্ড, স্কুল অব রকের পরিবেশনা।

ব্রডওয়েতে টিকিট কেটে শো দেখা খরচ সাপেক্ষ ব্যাপার। তাই এখানে প্রচণ্ড গরমের মধ্যেও ফ্রোজেন থিয়েটারের শো দেখে বেশ ঠান্ডাই অনুভব করা যায়। যেদিন গিয়েছিলাম, সেদিন ছিল কাম ফ্রম অ্যাওয়ে, কিংকি বুটস, দি ব্যান্ড’স ভিজিট ও ফ্রেন্ডস-দি মিউজিক্যাল প্যারোডির পরিবেশনা। ঢাকায় থাকতে শহীদ মিনারে যেভাবে উন্মুক্ত মঞ্চে পথনাটক দেখতাম, অনেকটা সেরকম লাগছিল। প্রত্যেক পারফরমারের সামনে মাইক্রোফোন। তারা এক জায়গায় দাঁড়িয়ে কণ্ঠের মাধ্যমে অভিনয় করছেন, অনেকটা বৃন্দ আবৃত্তির মতো। জাদু প্রদর্শনীও ছিল। কাঁচি দিয়ে ফিতা কেটে সেটা আবার জোড়া লাগিয়ে দেওয়ার জাদু দেখে ছোটবেলার কথা মনে পড়ে গেল।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT