২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

বাস টার্মিনালটি ব্যবহার উপযোগী করুন

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮, ৯:৪১ পূর্বাহ্ণ


রাজশাহী নগরীর যাত্রীসাধারণের উন্নত সেবাদানের জন্য ২০০৪ সালের জুন মাসে নগরীর উপকণ্ঠে সাত দশমিক চার-এক একর জায়গার উপর সাড়ে সাত কোটি টাকা ব্যয়ে গড়িয়া তোলা হয় নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল। ২০১১ সালের জুন মাসে তাহা পরিবহন মালিকদের নিকট হস্তান্তর করে রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (আরডিএ)। উদ্দেশ্য ছিল, নগরীর মূল কেন্দ্রে অবস্থিত শিরোইল বাস টার্মিনাল সরাইয়া তাহা শহরের বাহিরে স্থানান্তর করা, যাহাতে শহরের যানজট ও দুর্ঘটনা কমিয়া আসে। কিন্তু প্রতিষ্ঠার ১৪ বত্সর পরও এই উদ্যোগ বাস্তবায়িত না হওয়াটা দুঃখজনক। বর্তমানে টার্মিনালটি কোনো কাজেই আসিতেছে না। এখানে একটু বৃষ্টি হইলেই জমিয়া যায় পানি, অনেকটা ছোটখাটো পুকুরে পরিণত হয়। আছে নিরাপত্তার অভাবও। ফলে এখানে যাত্রীরা আসেন না। টার্মিনালটির এই দুরবস্থার কারণে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ চারটি পয়েন্ট বা মোড়ে গড়িয়া উঠিয়াছে বিকল্প বাস টার্মিনাল। এই মোড়গুলি হইল—ভদ্রার মোড়, তালাইমারী মোড়, বিন্দুর মোড় ও গ্রেটাররোড রেল ভবনের মূল প্রবেশদ্বার। সেখানে ফুটপাত ও সড়ক দখল করিয়া যাত্রী তুলিবার জন্য বিভিন্ন কোম্পানির বাস ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড় করাইয়া রাখা হইতেছে। সেখানে গড়িয়া উঠিয়াছে টিকিট কাউন্টার। বাস কাউন্টার রহিয়াছে বন্ধগেট বাইপাসের মোড় ও বিনোদপুর মোড়েও। ইহাতে রাজশাহী শহরের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি সড়কে যানজট নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হইয়া দাঁড়াইয়াছে। সেইসঙ্গে বাড়িতেছে জনদুর্ভোগ। এমনকি বাড়িতেছে সড়ক দুর্ঘটনাও। কিন্তু এই বিষয়টি যেন দেখিবার কেহ নাই।

বর্তমানে আন্তঃজেলা ও ঢাকার কোচগুলি শিরোইল বাস টার্মিনাল হইতেই ছাড়িয়া যায়। আর আন্তঃজেলা বাসগুলি নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল হইতে ছাড়িয়া আসিলেও সেখান হইতে যাত্রী না উঠানোর কারণে এই টার্মিনালটি শুধু ব্যবহূত হইতেছে বাস রাখিবার গ্যারেজ হিসাবে। ইহার প্রবেশদ্বারের অবস্থা এতটাই খারাপ যে তাহা বর্ণনাতীত। এমনকি আশেপাশে গজাইয়া উঠিয়াছে জঙ্গলও। নগর পরিকল্পনাবিদদের মতে, শহরকে নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করিতে শহরের ভিতর হইতে বাস চলাচল বন্ধ করিয়া বাইপাস দিয়া চলাচল করাই শ্রেয়। যেহেতু নূতন বাস টার্মিনালটি শহর হইতে খুব দূরে নহে, বাইপাস দিয়া চমত্কার সড়কও নির্মিত হইয়াছে, তাই নওদাপাড়া বাস টার্মিনালটির সদ্ব্যবহার করা বাঞ্ছনীয়। এইক্ষেত্রে যেসব প্রতিবন্ধকতা আছে তাহা দূর করা প্রয়োজন। বিশেষ করিয়া আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে এই এলাকায় যাত্রীদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করিতে হইবে। চালু করিতে হইবে টাউন সার্ভিস, যাহাতে যাত্রীরা সহজেই নূতন বাস টার্মিনালে যাতায়াত করিতে পারেন। টার্মিনালটি ব্যবহার না করিয়া বিভিন্ন পয়েন্টে বাস দাঁড় করাইয়া পানি দিয়া পরিষ্কার করিবার কারণে এইসব সড়ক সব সময় ভেজা থাকে এবং তাহাতে বিটুমিন নষ্ট হইয়া পাথর উঠিয়া যায়। রাস্তায় তৈরি হয় খানাখন্দ। সুতরাং এই সব সমস্যার সমাধান হইল—নওদাপাড়া বাস টার্মিনালটির প্রয়োজনীয় সংস্কারসাধন করিয়া তাহা ব্যবহার উপযোগী করা। আমরা এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করিতেছি।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT