১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

পোশাকের দেশীয় ব্র্যান্ড বাড়ছে

প্রকাশিতঃ জুন ৭, ২০১৮, ১১:৪৮ পূর্বাহ্ণ


দেশে গত কয়েক বছরে পোশাকের বাজারে বেশ কিছু নতুন ফ্যাশন ব্র্যান্ড চালু হয়েছে। এসব ব্র্যান্ডের অধিকাংশই গড়ে তুলেছে তৈরি পোশাক রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানগুলো, যারা দীর্ঘদিন ধরে এইচঅ্যান্ডএম, ওয়ালমার্ট, জারা, প্রাইমার্ক, গ্যাপ, নাইকিসহ বিশ্বখ্যাত বিভিন্ন ব্র্যান্ডকে পোশাক সরবরাহ করে আসছে।

কয়েকজন উদ্যোক্তা বলেছেন, দেশের পোশাক বাজার খুবই সম্ভাবনাময়। কারণ আয় বৃদ্ধির সুবাদে মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বাড়ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে মানসম্মত পোশাকের চাহিদা। তাই রপ্তানির পাশাপাশি কোটি কোটি টাকা বিনিয়োগে নতুন ব্র্যান্ড গড়ে উঠছে। স্থানীয় ব্র্যান্ডগুলো মানসম্মত পণ্য সরবরাহ করায় পোশাক আমদানি কমছে।

গত শতাব্দীর শেষ দিকে ১৯৯৮ সালে পোশাকশিল্পের নামকরা প্রতিষ্ঠান জায়ান্ট গ্রুপের দেশীয় ব্র্যান্ড হিসেবে টেক্সমার্টের যাত্রা শুরু হয়। প্রথম দিকে রপ্তানির পর যেসব পোশাক কারখানায় থেকে যেত, সেগুলোই তারা বিক্রি করত। কয়েক বছর পর অবশ্য নিজস্ব ডিজাইন বা নকশায় পোশাক তৈরি শুরু করে ব্র্যান্ডটি। ২০০৭ সালে শুধু তরুণদের জন্য ওকাল্ড নামে আরেকটি ব্র্যান্ড গঠন করে টেক্সমার্ট।

২০০৪ সালে যাত্রা শুরু হয় বেক্সিমকো গ্রুপের ব্র্যান্ড ইয়েলোর। বর্তমানে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে তাদের ১৯টি বিক্রয়কেন্দ্র আছে। একই বছর চালু হয় ব্যাবিলন গ্রুপের দেশীয় ফ্যাশন ব্র্যান্ড ‘ট্রেন্ডস’।

ব্র্যান্ডের পোশাকের চাহিদা বাড়তে থাকায় ২০১৪ সালে ইভিন্স গ্রুপ ‘নোয়া’ ও অ্যাম্বার গ্রুপ ‘অ্যাম্বার লাইফস্টাইল’ ব্র্যান্ড চালু করে। পরের বছর ইপিলিয়ন গ্রুপ নিয়ে আসে সেইলর। এনার্জিপ্যাক গ্রুপ গত বছর চালু করেছে ‘ও কোড’। এসব গ্রুপ দীর্ঘদিন ধরে তৈরি পোশাক রপ্তানির পাশাপাশি অন্য খাতের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত আছে।

পবিত্র ঈদুল ফিতর সামনে রেখে গত কয়েক মাসে তিনটি ফ্যাশন ব্র্যান্ডের যাত্রা শুরু হয়েছে। এর মধ্যে পোশাক রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান টিম গ্রুপ নিয়ে এসেছে ‘টুয়েলভ’ ব্র্যান্ড, ডেকো গ্রুপ পুরোনো ব্র্যান্ড ম্যানস ক্লাবের দুটি বিক্রয়কেন্দ্র কিনে নিয়ে চালু করেছে ‘ক্লাব হাউস’, আর স্নোটেক্স গ্রুপ মিরপুরে একটি বিক্রয়কেন্দ্রের মাধ্যমে চালু করেছে ‘সারা’ নামের ফ্যাশন ব্র্যান্ড।

২০ বছর ধরে পোশাক রপ্তানির সঙ্গে যুক্ত স্নোটেক্স গ্রুপ। চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১৩ কোটি মার্কিন ডলার বা ১ হাজার ৯২ কোটি টাকার পোশাক রপ্তানি করেছে গ্রুপটি। তিন মাস আগে তাদের দেশীয় ফ্যাশন ব্র্যান্ড সারার যাত্রা শুরু হয়। এসব তথ্য দিয়ে গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এস এম খালেদ গত সোমবার প্রথম আলোকে বলেন, ‘তৈরি পোশাক রপ্তানির দীর্ঘ অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে আমরা কম দামে ভালো মানের পোশাক বিক্রির উদ্দেশ্য নিয়ে সারা ব্র্যান্ড প্রতিষ্ঠা করেছি। ক্রেতাদের কাছ থেকে এখন পর্যন্ত আমরা দারুণ সাড়া পাচ্ছি। আশা করছি, চলতি বছরের মধ্যে আমরা আরও তিন-চারটি বিক্রয়কেন্দ্র করে ফেলতে পারব।’

এস এম খালেদ বলেন, ‘রপ্তানি বাজারে আমরা অনেক প্রতিযোগিতার মধ্যে ব্যবসা করি। আশা করি, স্থানীয় বাজারেও আমরা ভালো করব।’ তিনি আরও বলেন, দুই দশক পর হয়তো পোশাক রপ্তানির বর্তমান অবস্থা থাকবে না। কিন্তু স্থানীয় বাজারের মাধ্যমে এই ব্যবসা টিকে থাকবে।

ষাটের দশকে রক্সি পেইন্ট দিয়ে ডেকো গ্রুপের ব্যবসায় হাতেখড়ি হয়। পরে পোশাক রপ্তানির ব্যবসায়ে যুক্ত হয়। জারা, ইন্ডিটেক্স, টমি হিলফিগার, টম টেইলর, এস ওলিভারসহ নামীদামি ব্র্যান্ডের পোশাক তৈরি করে তারা। সম্প্রতি ম্যানস ক্লাবের ঢাকার ওয়ারী ও বসুন্ধরা সিটি কমপ্লেক্সের দুটি বিক্রয়কেন্দ্র কিনে ফ্যাশন ব্র্যান্ড ক্লাব হাউস চালু করে গ্রুপটি। ইতিমধ্যে তাদের বিক্রয়কেন্দ্রের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে চারটি।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০, সার্কুলেশন বিভাগঃ০১৯১৬০৯৯০২০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT