১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

ত্বকের যত্নে হলুদ গাঁদা ফুল

প্রকাশিতঃ ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮, ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ


পহেলা ফাল্গুনের পরের দিনই ভালোবাসা দিবস। পহেলা ফাল্গুনে সারা দিন বাহিরে ঘুরাঘুরি করে চেহারায় পরেছে ক্লান্তির ছাপ। মেকআপ নিয়ে রোদে ঘুরার কারণে চেহারাটাও একটু কালছে হয়ে গিয়েছে। তাহলে উপায়? ভালোবাসা দিবসে সাজগোজের কি হবে? তাহলে কি মাটি হবে নাকি এবারের ভালোবাসা দিবস? মটেও না। আপনার ফাল্গুনকেই কাজে লাগান ভালোবাসাকে প্রাণবন্ত করতে। কীভাবে বুঝতে পারেন নি? বলছি, আপনি পহেলা ফাল্গুনে সাজার জন্য যে গাঁদা ফুলগুলো ব্যবহার করেছেন সেগুলোই ব্যবহার করুন আপনার ত্বকের যত্নে। কীভাবে? আসুন তাহলে জেনে নেই রূপচর্চায় গাঁদা ফুলের কিছু ব্যবহার।

ত্বকের রোদে পোড়া দূর করতে গাঁদার পাপড়ি বাটা লাগান ত্বকে। আভাময় ত্বকের জন্য গাঁদার রসের সঙ্গে কমলালেবুর রস মিশিয়ে লাগান। বিবর্ণ ত্বকের হারানো শ্রী ফিরে পেতে মুখে ও শরীরে কাঁচা দুধের সঙ্গে গাঁদা ফুলের রস নিয়মিত মাখবেন।

ত্বক উজ্জ্বল রাখতে কয়েকটি টাটকা গাঁদা ফুল নিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। ২ টেবিল চামচ হলুদ গুঁড়া মিশিয়ে মিশ্রণটি মুখে ও গলায় লাগিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

স্বাভাবিক ত্বকের জন্য দুই চা–চামচ দই, দুই চা– চামচ গাঁদা ফুলের পেস্ট এবং ৫ ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এবার ৩০ মিনিটের মতো মিশ্রণটি ঢেকে রেখে তারপর মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

এক লিটার পানিতে ৭/৮টি গাঁদা ফুলের পাপড়ি ফেলে পানিটা ফুটিয়ে নিন। এবার পানিটা ছেঁকে নিয়ে এর সঙ্গে ১ টেবিল চামচ মধু ও ১ টেবিল চামচ বাদাম তেল মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি ঠাণ্ডা করে ফ্রিজে রেখে দিন। শুষ্ক ত্বকের টোনার হিসেবে এটি ব্যবহার করুন।

এক কাপ শুকনো গাঁদা ফুল এবং দুই চা–চামচ জলপাই তেল একসঙ্গে মিশিয়ে গোসলের পানিতে ফেলে গোসল সেরে নিন। এটি নিয়মিত ব্যবহারে ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল মসৃণ।

গাঁদা ফুলের গুণ কাহিনী:

. আর্নিকা গোষ্ঠীর এই কমলা রঙের ফুলটি যেকোনো ৰাত সারায়।

. এটির এ্যান্টিসেপটিক ও এ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল গুণ রয়েছে।

. ত্বকে কোনো রকম সংক্রমণে গাঁদার রস অব্যর্থ।

. শরীরের কড়া সারাতে গাঁদার ডাঁটির রস ব্যবহৃত হয়।

. বলিরেখা থেকে ত্বককে রক্ষা করে।

. ত্বকের কাটা-ছেঁড়ায় জীবাণুনাশক হিসেবে কাজ করে।

. ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করতেও সাহায্য করে এই ফুল।

. ত্বকের তরুণ ভাব বজায় রাখতে সাহায্য করে।

. রোদে পোড়া ত্বককে সজীব করে তোলে।

. চোখের নিচের ফোলা ভাব কমায়।

. মাথার খুশকি দূর করে।

. চুলে প্রাকৃতিক রঙের কাজ করে।

. ত্বকের স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা বজায় রাখতে সাহায্য করে।

এবার থেকে শুধু ফাল্গুন বা ভালোবাসা দিবসের জন্য নয়, সারা বছরই যখনই হাতের কাছে গাঁদা ফুল পাবেন তখনই সেটা ব্যবহার করুন আপনার ত্বকের যত্নে। আর প্রাকৃতিক উপায়ে পার উজ্জ্বল, মসৃণ ও কোমল ত্বক।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০, সার্কুলেশন বিভাগঃ০১৯১৬০৯৯০২০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT