১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

টুইটারে ধোনিকে নিয়ে কানাঘুষা, কিন্তু কেন?

প্রকাশিতঃ জুলাই ১৮, ২০১৮, ৭:৫৬ অপরাহ্ণ


গতকাল লিডসে ইংল্যান্ডের কাছে ৮ উইকেটে হেরে ৩০ মাস পর প্রথমবারের মতো কোনো ওয়ানডে সিরিজ হেরেছে ভারত। অধিনায়ক বিরাট কোহলির নেতৃত্বে ভারতের প্রথম ওয়ানডে সিরিজ হারের মুহূর্তে সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির একটি ব্যাপার কিছুতেই মাথায় ঢুকছে না ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীদের। ম্যাচ শেষে তিনি আম্পায়ারদের কাছ থেকে ম্যাচ বলটি চেয়ে নিজের কাছে নিয়ে নেন। ক্রিকেটাররা অনেক সময়ই ম্যাচে ব্যবহৃত স্টাম্প, বল ইত্যাদি সুভ্যেনির হিসেবে আম্পায়ারদের কাছ থেকে চেয়ে নিয়ে থাকেন। কিন্তু ধোনি কেন ভারতের হেরে যাওয়া ম্যাচে সুভ্যেনির সংগ্রহে নেমেছেন—এটা নিয়ে তৈরি হয়েছে সন্দেহ। তবে কি খুব শিগগির ক্রিকেটকে বিদায় বলছেন ভারতের অন্যতম সফল এই অধিনায়ক? টুইটারে এ নিয়ে চলছে এন্তার আলোচনা ও বিতর্ক!

অনেক টুইটার ব্যবহারকারী মনে করেন, খুব শিগগির ক্রিকেটকে বিদায় বলবেন ধোনি। নয়তো ভারতের হেরে যাওয়া ম্যাচে কেন সুভ্যেনির সংগ্রহ করবেন তিনি? ইংল্যান্ডের মাটিতে এটাই তাঁর শেষ ম্যাচ কি না, সে কথাও উঠছে।

নিবরাজ রমজান নামের একজন ক্রিকেটভক্ত প্রশ্ন রেখেছেন, ‘এটিই কি ইংল্যান্ডের মাটিতে ধোনির শেষ ম্যাচ?’

‘ট্রেন্ডস’ ধোনি নামের একটি টুইটার পেজে লেখা হয়েছে, ‘গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নটা হচ্ছে ধোনি কেন আম্পায়ারদের কাছ থেকে বল সংগ্রহ করলেন!’

ওমার রাজপুত নামের এক ক্রিকেটপ্রেমী রীতিমতো বাজি ধরেছেন, ‘মহেন্দ্র সিং ধোনি খুব শিগগির ক্রিকেটকে বিদায় বলতে চলেছেন। বিশ্বাস না হলে আমার এই পোস্টের স্ক্রিন শট নিয়ে রাখতে পারেন।’

অভিষেক দিওয়াদি নামের এক ভক্ত ব্যাপারটিতে ভয়ানক চিন্তিত। তিনি চান না ধোনি এই মুহূর্তে ক্রিকেটকে বিদায় বলুন, ‘আমি ভয় পাচ্ছি। প্লিজ ধোনি, এই মুহূর্তে ক্রিকেটকে বিদায় বলবেন না। আরও কিছুদিন খেলুন। এ ধরনের কোনো ঘোষণা দয়া করে দেবেন না। এতে যে আমার দারুণ ছেলেবেলাটার ইতি ঘটে যাবে!’

রোহিত নামের একজন তো ধোনির বিদায়ের দিনক্ষণও বলে দিয়েছেন, ‘ধোনির অবসরের ঘোষণাটা আসছে খুব শিগগির। এশিয়া কাপ খেলেই শেষ হয়ে যাবে ধোনি-অধ্যায়।’

ভারতকে ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি ও ২০১১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতানো ধোনি ২০১৪ সালে হঠাৎ করেই টেস্ট ক্রিকেট থেকে সরে দাঁড়ান। ৩২১ ওয়ানডেতে ৫১ গড়ে ১০ হাজার ৪৬ রান করেছেন তিনি। চতুর্থ ভারতীয় ও ক্রিকেট ইতিহাসের দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে ৫০ ওভারের ক্রিকেটে ১০ হাজার রানের কীর্তি গড়া ধোনি দুটি বিশ্বকাপ ছাড়াও ভারতকে এনে দিয়েছেন আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপা।