২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

চুল কেটে গৃহবধূকে সিগারেটের ছ্যাঁকা

প্রকাশিতঃ জানুয়ারি ৩, ২০১৮, ১:৫৪ অপরাহ্ণ


নরসিংদীর রায়পুরায় এক গৃহবধূকে চুল কেটে সিগারেটের ছ্যাঁকা দিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার ওই গৃহবধূ স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির পাঁচজনের বিরুদ্ধে রায়পুরা থানায় মামলা করেছেন।

ওই গৃহবধূর নাম অথরা আক্তার সুমি (২২)। জানা গেছে, ৬ বছর আগে রায়পুরার পলাশতলী ইউনিয়নের শাহরখোলা গ্রামের মুদিদোকানি বাহার উদ্দিনের মেয়ে অথরা আক্তারের সঙ্গে একই উপজেলার জাহাঙ্গীরনগর গ্রামের হাসেম মিয়ার ছেলে কবির মিয়ার বিয়ে হয়। এই দম্পতির দুই ছেলে আছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই অথরার স্বামী কবির যৌতুকের জন্য তাঁর ওপর নির্যাতন শুরু করেন। বিভিন্ন অজুহাতে বাবার বাড়ি থেকে যৌতুক এনে দেওয়ার জন্য অথরাকে চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন কবির। যৌতুক দিতে অস্বীকৃতি জানালেই তাঁর ওপর নেমে আসত নির্যাতন। দুই সন্তানের ভবিষ্যতের দিকে চেয়ে সবকিছু এত দিন নীরবে সহ্য করেছেন অথরা। বিভিন্ন সময় অথরা তাঁর বাবার বাড়ি থেকে ৬০ হাজার টাকা এনে কবিরের হাতে দেন। সম্প্রতি কবির বাড়িতে একটি ঘর নির্মাণের কাজ শুরু করেন। এ জন্য অথরার কাছে ৩ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। অথরা যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে তাঁকে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। গত শনিবার বিকেলে অথরাকে পুনরায় যৌতুক এনে দিতে চাপ দিতে থাকেন কবির। একপর্যায়ে কবির অথরাকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করেন। পরে কাঁচি এনে তাঁর মাথার চুল কেটে দেন। অথরার চোখের ভ্রু চেছে ফেলেন দেবর। এ সময় শ্বশুর হাসেম মিয়া হাতে থাকা জ্বলন্ত সিগারেট দিয়ে অথরার দুই হাতে ছ্যাঁকা দেন। একপর্যায়ে স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ি ও দেবরদের নির্যাতনে অচেতন হয়ে পড়েন অথরা। খবর পেয়ে বাবার বাড়ির লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

অথরা আক্তার প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ি ও দেবর যৌতুকের জন্য আমাকে নির্যাতন শুরু করেন। ঘর নির্মাণের জন্য ৩ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। কিন্তু আমার বাবা মুদি দোকান চালিয়ে আমাদের সংসার চালান । এত টাকা পাবেন কোথায়। সেই ভেবে নির্যাতন মুখ বুজে সহ্য করেছি। কিন্তু আর কত।’

অথরার বাবা বাহার উদ্দিন বলেন, ‘বিয়ে দিয়েছিলাম মেয়ে সুখে ঘর করবে বলে। সুখ তার কপালে হলো না। বিয়ের পর থেকেই স্বামীর নির্যাতন সইতে হচ্ছে। পাষণ্ডের হাত থেকে মেয়েকে বাঁচাতে এই পর্যন্ত যৌতুক বাবদ ৬০ হাজার টাকা দিয়েছি।’

এ বিষয়ে জানতে গতকাল কবির মিয়ার মুঠোফোনে কল দিয়ে বন্ধ পাওয়া যায়।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন বলেন, আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করা হয়েছে। তাঁদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০, সার্কুলেশন বিভাগঃ০১৯১৬০৯৯০২০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT