২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

চলছে বইমেলার শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

প্রকাশিতঃ জানুয়ারি ৩১, ২০১৮, ১২:১৫ অপরাহ্ণ


বইপ্রেমীদের প্রাণের মেলা, একুশে বইমেলার চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। প্রকাশকেরা ব্যস্ত স্টল নির্মাণ ও স্টলের সাজসজ্জা নিয়ে। পুরোদমে চলছে নির্মাণ শ্রমিকদের কর্মযজ্ঞ। বইমেলার দর্শনার্থীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিতে নিরাপত্তা বেস্টনি গড়ে তুলছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘুরে এমন চিত্রই চোখে পড়েছে।

প্রতিবারের মতো এবারও মেলাকে কেন্দ্র করে বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে চলছে স্টল নির্মাণের কাজ। সার্বিক তত্ত্বাবধানে রয়েছে বাংলা একাডেমি। ১ ফেব্রুয়ারি বাংলা একাডেমিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে অমর একুশে গ্রন্থমেলার উদ্বোধন করবেন।

বইমেলার দুই অংশ ঘুরে কথা বলার চেষ্টা করেছি বইমেলার সঙ্গে যুক্ত মানুষজনের সঙ্গে। নির্মাণ শ্রমিক খান শহিদুল ইসলাম ১৫ বছর ধরে বইমেলায় নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করছেন। এবার তিনি পলাশ প্রকাশনীসহ তিনটি স্টল নির্মাণের কাজ হাতে নিয়েছেন। তিনি জানান, তারা চার জন মিস্ত্রি কাজ করছেন, স্টল নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ।

বইমেলায় বাংলা একাডেমির স্টলে রংয়ের কাজ করছেন রংমিস্ত্রি হারুন উর রশিদ। তিনি ১০ বছর ধরে বইমেলায় রংয়ের কাজ করে আসছেন। তিনি জানান, দৈনিক মজুরিতে তিনি স্টল রং করেন। একটি স্টল পুরোপুরি রং করতে দুই দিন সময় লাগে।

ন্যাশনাল পাবলিকেশন্স এর প্রকাশক এস এস ইব্রাহিম খলিল সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে তার স্টলের কাজ তদারকি করছেন। তিনি বলেন, স্টল নির্মাণ কাজ পুরোদমে চলছে। আজকের মধ্যে স্টল নির্মাণ ও সাজসজ্জার কাজ পুরোপুরি শেষ হবে।
দাঁড়িকমা প্রকাশনীর প্রকাশক আবদুল হাকিম নাহিদ জানান, এবার তারা বইমেলায় ৬৬৬ নম্বর স্টল বরাদ্দ পেয়েছেন। স্টলের কাজ পুরোপুরি শেষ হয়েছে। মেলাকে কেন্দ্র করে দাঁড়িকমা প্রকাশ করছে দেড় শতাধিক নতুন বই।

বইমেলার আয়োজক বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, মেলাকে দর্শনার্থীদের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে মেলার দুই পাশের বিভিন্ন স্থানকে করা হবে সবুজায়ন। টিএসসি ও দোয়েল চত্বরে থাকবে দুটি দৃষ্টিনন্দন গেট। গেটের সঙ্গে থাকবে দুটি বড় জায়ান্ট স্ক্রিন। যেখান থেকে দর্শনার্থীরা খুব সহজেই মেলার বিভিন্ন দিক বুঝে নিতে পারবে। আর বৃদ্ধ ও প্রতিবন্ধীদের জন্য থাকছে হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা। এছাড়াও থাকছে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা।

মেলার নিরাপত্তা প্রসঙ্গে কথা হয় শাহবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল হাসানের সঙ্গে। তিনি জানান, বইমেলার নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার পর থেকেই আমার নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছি। পুরো ফ্রেরুয়ারি জুড়ে নিরাপত্তা বলয় বলবৎ থাকবে।

বাংলা একাডেমির অতিরিক্ত সচিব আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘পুলিশ, র‌্যাব, এনএসআইসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সমন্বয়ে তিন স্তরে নিরাপত্তার চাদরে ঘেরা থাকবে এবারের বইমেলা। বইমেলায় নজরদারি রাখবে আটটি ওয়াচ টাওয়ার। বইমেলাসহ আশেপাশের এলাকায়ও সক্রিয় থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।’ তিনি বলেন, ‘এবার প্রথমবারের মতো বাংলা একাডেমি তৈরি করেছে বিশেষ অ্যাপস, যেখানে গ্রন্থমেলার সব তথ্য আপডেট থাকবে।’

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT