২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

খাবার পরে, আবার খেতে চাওয়া

প্রকাশিতঃ জুলাই ৪, ২০১৮, ৭:৪১ অপরাহ্ণ


মাত্রই খেয়ে উঠলেন। আবার খেতে ইচ্ছে করে জুয়েলের (ছদ্মনাম)। পেটের ক্ষুধা না থাকলেও চোখের ক্ষুধার জন্য খেতে চান তিনি। ‘ভালো কোনো খাবার দেখলে নিজেকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারি না। শুধু খেতেই ইচ্ছে করে। দেখা গেল একটু আগেই হয়তো খেয়েছি।’ বললেন তিনি। অনেকেরই এমনটা হয়। খাওয়ার অল্প সময় পরে মজার কোনো খাবার দেখলেই আবার খেতে ইচ্ছে করে।
রাজধানীর বারডেম জেনারেল হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ পুষ্টিবিদ শামসুন্নাহার নাহিদ জানান, খাবার দেখলেই খেতে চাওয়া অনেক কারণে হতে পারে। যে কারণেই হোক না কেনো সেটা খুঁজে বের করা উচিত। এ বিষয়টি সমাধান করা উচিত। খাওয়ার পরও আবার খেতে চাওয়া শরীরের জন্য ক্ষতিকর।
এই পুষ্টিবিদ আরও যোগ করেন, আপনি যতটুকু খাবারই গ্রহণ করেন না কেন, সেটা পরিপূর্ণভাবে খাওয়া উচিত। খাবারের কতটুকু পুষ্টি রয়েছে সেদিকে লক্ষ রাখা উচিত। পুষ্টিকর খাবার অল্প খেলেও শরীরে পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে পারে। আর যে খাবারে কম পুষ্টি রয়েছে সে খাবার বেশি পরিমাণ খেলেও শরীরের জন্য কোনো কাজে আসবে না। এর ফলে অনেক সময় খাবার শেষ করার পর আরেকটি মজার খাবার দেখলে খেতে মন চায়।
খাবার পরে আবার খেতে চাওয়া একটি মনস্তাত্ত্বিক বিষয়ও। অতিরিক্ত ক্যালরিযুক্ত খাবারের প্রতি মস্তিষ্কের আকর্ষণ রয়েছে। এ কারণে এ ধরনের খাবার দেখলেই যতই পেট ভরা থাকুক না কেন, খাবারগুলো খেতে মন চাইবেই। এ ধরনের অভ্যাস এবং অতিরিক্ত ক্যালরিযুক্ত খাবার স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর।
স্বাদ ও গন্ধ খাবারের প্রতি আকৃষ্ট করে। খাবারে থাকা উপকরণগুলো অনেক সময় খাবার পরে আবার খেতে উদ্বুদ্ধ করে। লবণ, চিনি ও চর্বির মিশেলে তৈরি খাবারগুলো খাবার গ্রহণের জন্য মস্তিষ্কে উত্তেজনা সৃষ্টি করে। ফলে এ ধরনের খাবার মানুষ বারবার খেতে চায়।
ভালোভাবে তৈরি পুষ্টি ও স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে। খাবারগুলোর প্রতি ভালোবাসা সৃষ্টি করতে হবে। বেশির ভাগ সময় পুষ্টিকর এবং স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খেতে মন চায় না। প্রতিদিন অল্প পরিমাণ হলেও এসব খাবার গ্রহণ করে এর প্রতি ভালোবাসা তৈরি করতে হবে।
সব সময় ভালো খাবারের আশপাশে ঘোরাঘুরি করলে তো খেতে মন চাইবেই। বাংলা ভাষায় একটা প্রবাদ প্রচলিত রয়েছে ‘চোখের আড়াল তো মনের আড়াল।’ তাই ‘ভালো’ খাবারের আড়ালে থাকার চেষ্টা করুন। পছন্দের খাবারগুলো যাতে চোখের সামনে না পড়ে সে বিষয়ে একটু কঠোর হন। এ জন্য রান্নাঘরে ঢুঁ মারা কিংবা একটু পর পর ফ্রিজ খুলে দেখার অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম অনেকে সময় খেতে চাওয়ার ইচ্ছাটা বাড়িয়ে দেয়। এ মাধ্যমে অনেকেই মুখরোচক খাবারে ছবি দেন। এসব খাবারের খবরাখবর জানান। তাই রেস্তোরাঁর পেজ বা খাবার নিয়ে তৈরি কোনো গ্রুপে লাইক না দেওয়াই ভালো।
চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করুন। মনে মনে প্রতিজ্ঞা করুন। শরীরের জন্য ক্ষতিকর এমন কিছু খাবেন না। মনকে বোঝান, খাবার গ্রহণ করার পর আবার খেলে বা বারবার খেলে নিজের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।
শামসুন্নাহার নাহিদ বলেন, যেসব খাবার অনেক পুষ্টিগুণসম্পন্ন সেগুলো সব এক দিনে খেয়ে ফেললে চলবে না। পুষ্টিগুণসমৃদ্ধ প্রিয় খাবারগুলো অল্প পরিমাণে খেতে হবে এবং ছোট কামড়ে। অনেকেই আছে টেলিভিশনের সামনে বসে কিংবা গল্প করতে করতে অবচেতনভাবে বা অন্যমনস্কভাবে খাও। এতে দেখা যায় যতই খাচ্ছেন কিন্তু আপনার পেট ভরছে না। এভাবে খেলে স্বাভাবিকের তুলনায় বেশি খাওয়া হয়। তাই খাবার খাওয়ার সময় মনোযোগ সহকারেই খাওয়া উচিত।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT