২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

কৃষক সহায়তায় ১২০০ কোটি ডলারের তহবিল গঠন

প্রকাশিতঃ আগস্ট ৪, ২০১৮, ১১:২৫ পূর্বাহ্ণ


চীন, কানাডা ও মেক্সিকোর সঙ্গে সরাসরি বাণিজ্য যুদ্ধে নামার জেরে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কায় রয়েছে আমেরিকার কৃষি খাত। এই অবস্থায় আমেরিকার কৃষকদের সহায়তায় ১ হাজার ২০০ কোটি ডলারের তহবিলের ঘোষণা দিয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন।

চীন, কানাডা ও মেক্সিকোর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যকে ‘অন্যায্য’ ঘোষণা করে উচ্চ শুল্কারোপ করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। বিশেষত বিভিন্ন ধরনের চীনা পণ্যে শুল্কারোপের ঘোষণায় নড়েচড়ে বসেছে বিশ্ব। ট্রাম্প প্রশাসন ৩ হাজার ৪০০ কোটি মূল্যমানের চীনা পণ্যে শুল্ক আরোপ করে ঘোষণা দেয় সম্প্রতি। এর পরিপ্রেক্ষিতে চীনও পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে সমমূল্যের মার্কিন পণ্যে শুল্কারোপ করে। এর মধ্যে সয়াবিনসহ বিভিন্ন কৃষিপণ্যও রয়েছে। বাণিজ্য যুদ্ধের এই বাস্তবতায় দাঁড়িয়ে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকির মুখে রয়েছেন আমেরিকার কৃষকেরা। এ অবস্থায় কৃষি খাতকে সুরক্ষা দিতে ১ হাজার ২০০ কোটি ডলারের সহায়তা তহবিলের ঘোষণা এসেছে ট্রাম্প প্রশাসন থেকে।

বিবিসির খবরে বলা হয়, সহায়তা তহবিল থেকে কৃষকদের ভর্তুকি দেওয়া হবে। একই সঙ্গে অবিক্রীত কৃষিপণ্য কিনতেও সরকার এই তহবিল ব্যবহার করবে। আমেরিকার প্রত্যন্ত অঞ্চল রিপাবলিকানদের ভোটব্যাংক হিসেবে পরিচিত। এ কারণে মধ্যবর্তী নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকেরা।

২৪ জুলাই দেওয়া এ সম্পর্কিত টুইটার পোস্টে ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজের শুল্কনীতিকে এযাবৎকালের ‘শ্রেষ্ঠ’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। আমেরিকার রপ্তানি বাণিজ্যে এই নীতি সুফল বয়ে আনবে বলেও এতে তিনি উল্লেখ করেন। একই দিনে দেওয়া এক বক্তব্যে ট্রাম্প বলেন, ‘এই বিরোধের (বাণিজ্য যুদ্ধের) পর আমেরিকার কৃষকেরাই সবচেয়ে বড় সুফলভোগী হবেন, যখন দেশগুলো নতুন বাণিজ্য চুক্তি করতে বাধ্য হবে।’
তবে কৃষি সংশ্লিষ্ট বিশ্লেষকদের মতে, আমেরিকার রপ্তানি আয়ের ২০ শতাংশই আসে কৃষি খাত থেকে। ট্রাম্প প্রশাসনের শুল্কনীতির কারণে মার্কিন কৃষিপণ্যের চাহিদায় বড় ধরনের অবনমন ঘটতে পারে, যা দীর্ঘ মেয়াদে ক্রেতাদের সঙ্গে সম্পর্কের ক্ষেত্রে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

বিশ্লেষকদের এই মতের স্বপক্ষে প্রমাণ পাওয়া যায় বিশ্ববাজারে আমেরিকার সয়াবিনের দামে অবনমন থেকে। বর্তমানে বিশ্ববাজারে আমেরিকার সয়াবিনের দাম এপ্রিলের দামের তুলনায় ১৫ শতাংশ কম।
এ বিষয়ে কৃষি সংশ্লিষ্ট খাতের সংগঠন ফারমার্স ফর ফ্রি ট্রেড-এর নির্বাহী পরিচালক ব্রায়ান কুহল বিবিসিকে বলেন, ‘ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার জন্য কৃষকদের প্রয়োজন একটি স্থিতিশীল বাজার। এ কারণে প্রশাসনের প্রতি বাণিজ্য যুদ্ধ বন্ধ করে নতুন বাজার সৃষ্টিতে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান করছি আমরা।’

ট্রাম্প প্রশাসন এই বাণিজ্য যুদ্ধ শুরু করে গত মার্চে স্টিল ও অ্যালুমিনিয়াম পণ্য আমদানিতে শুল্ক আরোপের মাধ্যমে। ২০১৭ সালে এই খাতে আমেরিকা মোট ৪ হাজার ৬০০ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি করেছিল। এপ্রিলে চীন পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে ৩০০ কোটি ডলার মূল্যমানের মার্কিন পণ্যে শুল্কারোপ করে। জুনে ট্রাম্প প্রশাসন কানাডা, মেক্সিকো ও ইউরোপ থেকে ধাতব পণ্য আমদানিতেও শুল্ক বহাল করে। তিনটি পক্ষ মিলে পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে প্রায় ২ হাজার কোটি ডলার মূল্যমানের মার্কিন পণ্যে শুল্কারোপ করে। আর জুলাইয়ে বিষয়টি সব সীমা ছাড়িয়ে চীনের সঙ্গে সর্বাত্মক বাণিজ্য যুদ্ধে রূপ নেয়। এ অবস্থায় সবগুলো পক্ষ থেকেই পাল্টা পদক্ষেপ গ্রহণের ঘোষণা এসেছে।

কৃষি বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, এই বাণিজ্য বিরোধের জেরে ১ হাজার ১০০ কোটি ডলারের ক্ষতির আশঙ্কা এরই মধ্যে প্রকাশ করেছে আমেরিকার কৃষি বিভাগ। এই পরিপ্রেক্ষিতেই ১ হাজার ২০০ কোটি ডলারের কৃষি সহায়তা তহবিলের ঘোষণা এসেছে। এই তহবিলের একটি বড় অংশই ব্যয় হবে জরুরি ত্রাণ হিসেবে, যার জন্য কংগ্রেসের অনুমোদনের প্রয়োজন হবে না। এ ছাড়া এই তহবিল থেকে বিভিন্ন ফল ও বাদাম কেনার পরিকল্পনাও রয়েছে, যা সরকার পরিচালিত বিভিন্ন পুষ্টি প্রকল্পে পাঠানো হবে। কিছু অর্থ ব্যয় হবে রপ্তানি বাজার সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর থেকেই এই তহবিল থেকে সহায়তা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু হতে পারে।

এ বিষয়ে কৃষিমন্ত্রী সনি পারডু বিবিসিকে বলেন, ‘এটি একটি সাময়িক সমাধান, যা ট্রাম্প প্রশাসনকে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে ন্যায্য ও দীর্ঘমেয়াদি বাণিজ্য চুক্তি সম্পাদনে সময় দেবে। এই সময়ে কৃষি খাতসহ অর্থনীতিতে যেন নেতিবাচক প্রভাব না পড়ে, তা নিশ্চিত করাই হচ্ছে এই তহবিলের লক্ষ্য।’

কৃষি খাতে সহায়তা দেওয়ার লক্ষ্যে এ তহবিল গঠনের প্রতি রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেটিক দলের একটি বড় অংশের সমর্থন থাকলেও কৃষি সংশ্লিষ্টরা বিষয়টিকে ভালো চোখে দেখছেন না।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০, সার্কুলেশন বিভাগঃ০১৯১৬০৯৯০২০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT