২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

উবারের চেয়েও সস্তা, তাই ইমরান চড়েন হেলিকপ্টারে!

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮, ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ


দুর্নীতির লাগাম টেনে ধরা, সরকারি ব্যয় হ্রাস ও সুশাসনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে পাকিস্তানের ক্ষমতায় মসনদে বসেছেন ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিবিদ বনে যাওয়া ইমরান খান। সরকারি ব্যয় হ্রাসে নিয়েছেন নানা পদক্ষেপ। কিন্তু তার অতিমাত্রায় হেলিকপ্টার প্রীতিতে এখন দেশজুড়ে জোর সমালোচনা শুরু হয়েছে। তবে দেশটির তথ্যমন্ত্রীর দাবি হেলিকপ্টারে প্রতি কিলো মিটারে খরচ হয় মাত্র ৫০-৫৫ রুপি। যা কি-না উবারের চেয়েও কম।

গত ১৮ আগস্ট পাকিস্তানের ২২তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন ইমরান খান। দেশের ভঙ্গুর অর্থনীতিকে টেনে তুলতে দায়িত্ব গ্রহণের পরপরই মন্ত্রীসভার বৈঠকে রাষ্ট্রীয় ব্যয় হ্রাসের জন্য বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেন। এরমধ্যে রয়েছে রাষ্ট্রীয় ব্যয়ে প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, প্রধান বিচারপতি, সিনেটের চেয়ারম্যান, জাতীয় পরিষদের স্পিকার ও মুখ্যমন্ত্রী, মন্ত্রিসভার সদস্য, সেনাপ্রধানসহ দলীয় নেতা ও সরকারি কর্মকর্তারা বিমানের প্রথম শ্রেণির আসনে ভ্রমণ করতে পারবেন না। এখন থেকে তারা বিমানের ক্লাব অথবা বিজনেস ক্লাসে ভ্রমণ করবেন।

এছাড়া রাষ্ট্রীয় খরচ বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রাসাদসম বাসভবন ব্যবহার না করে ওই বাসভবনে প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিবের জন্য ছোট যে একটি অংশ রয়েছে সেখানে থাকার কথা জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি নিরাপত্তার জন্য বিশাল ইউনিট কমিয়ে আনাসহ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মাত্র দুটি গাড়ি ব্যবহার এবং দু’জন গৃহকর্মী রাখবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন সাবেক এই ক্রিকেট তারকা।

ইমরান খানের এসব সিদ্ধান্তে দেশটির সাধারণ মানুষ বাহবাও দিয়েছিলেন। কিন্তু খরচ বাঁচানোর নামে তার হেলিকপ্টার ভ্রমণ নিয়ে পাকিস্তান জুড়ে শুরু হয়েছে জোর সমালোচনা। ব্যয় কমানোর কথা বলে বাসভবন থেকে সরকারি অফিসে যেতে ব্যবহার করছেন হেলিকপ্টার। এমনকি এক বাড়ি থেকে আরেক বাড়ি যেতেও ব্যবহার করেন এই বাহন। সঙ্গে থাকেন তার তৃতীয় স্ত্রী।

আর এতেই আপত্তি সবার। স্বাভাবিকভাবেই দেশের সাধারণ মানুষ সমালোচনা করছেন এই বলে যে, যিনি সরকারি খরচ কমাতে চাইছেন, তিনি কীভাবে হেলিকপ্টারে চেপে যাওয়ার বিলাসিতা দেখান। এছাড়া তার দুর্নীতির বিরোধিতা নিয়েও এখন প্রশ্ন উঠেছে।

এরই প্রেক্ষিতে পাক তথ্যমন্ত্রী ফওয়াদ চৌধুরী এবং পিটিআই নেতা আলি মহম্মদ খান দাবি করেছেন, বানি গালায় প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন থেকে সচিবালয়ের দূরত্ব ১৫ কিলোমিটার। এই পথ পাড়ি দিতে সড়ক পথের চেয়ে হেলিকপ্টার যাত্রা অনেক সস্তার। সময় লাগে মাত্র ৩ মিনিট। পাক তথ্যমন্ত্রী গুগলে হিসেব কষে দেখিয়েছেন হেলিকপ্টারে প্রতি কিলোমিটারে খরচ পড়ে মাত্র ৫৫-৫৫রুপি। যা উবারের খরচের চেয়েও কম। তবে দেশটির সংবাদমাধ্যমের হিসেবে এজন্য খরচ পড়ে প্রায় ৭ হাজার টাকার কাছাকাছি।

ইমরানের হেলিকপ্টার বিলাসিতা এবং এর খরচ নিয়ে তথ্যমন্ত্রীর দাবি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় চলছে জোর সমালোচনা ও ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ। হেলিকপ্টারে খরচ এত কম কীভাবে সম্ভব সেটাই ভেবে পাচ্ছেন না তারা।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT