১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল

অবাক হলাম, এখানেও আমার ভক্ত আছে!

প্রকাশিতঃ জানুয়ারি ২৩, ২০১৮, ২:২০ অপরাহ্ণ


♦ ভারতের কলকাতা ঘুরে এলেন মিথিলা।
♦ গল্পে পড়া, গানে শোনা শহরটায় এবারই প্রথম পা রাখলেন তিনি।
♦ ভ্রমণ নয়, উদ্দেশ্য ছিল অভিনয়।
♦ একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবিতে কাজ করছেন মিথিলা।
♦ শর্টফিল্মের নাম ‘মুখোমুখি’।

ভারতের কলকাতা ঘুরে এলেন মিথিলা। গল্পে পড়া, গানে শোনা শহরটায় এবারই প্রথম পা রাখলেন তিনি। তবে ভ্রমণ নয়, উদ্দেশ্য ছিল অভিনয়। সেখানে তিনি গিয়েছিলেন একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবির শুটিংয়ে অংশ নিতে। কলকাতা শহর কেমন দেখলেন? মেসেঞ্জারে এ প্রশ্ন করতেই জানালেন নতুন সব অভিজ্ঞতার কথা। তারপর কথায় কথায় আরও কিছু প্রশ্ন উঠল, ঢাকায় ফেরার প্রস্তুতি নিতে নিতে জবাব দিলেন মিথিলা।
কলকাতা শহর কেমন ঘুরছেন?
ঘোরাঘুরির সুযোগ কই? দুই দিনের জন্য এসেছি। আজ (সোমবার) ঢাকায় চলে আসছি। কাজে এসেছিলাম।
অফিসের কাজ?
না। শুটিং। একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবিতে কাজ করছি। আমার প্রথম শর্টফিল্ম। মজার ব্যাপার হলো, কলকাতায় আমি এবারই প্রথম এলাম।
বাহ্। ছবির ব্যাপারে আরও কিছু বলুন।
শর্টফিল্মের নাম মুখোমুখি। নির্মাতা পার্থ সেন। আমার সহশিল্পী গৌরব চক্রবর্তী। গৌরব ভারতের প্রখ্যাত অভিনেতা সব্যসাচী চক্রবর্তীর ছেলে। ছবিতে আমি ঢাকা থেকে কলকাতায় শুটিংয়ে আসা এক পরিচালকের চরিত্রে অভিনয় করছি। একদিন সেই মেয়ে রাস্তা হারিয়ে ফেলে। পরে কলকাতার এক ফটোগ্রাফারের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। মেয়েটিকে সে সাহায্য করে। দুজনের বন্ধুত্ব হয়। কিন্তু বিভিন্ন কারণে সেই দুজনের একসময় যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। মেয়েটি ঢাকায় ফিরে আসে। এরপর একসময় মেয়েটি সেই ছেলের খোঁজে আবার কলকাতায় ফিরে যায়।
ছবিটি কোথায় মুক্তি পাবে?
ইউটিউবে তো বটেই। আরও কিছু অনলাইন প্ল্যাটফর্মেও ছবিটি দেখা যেতে পারে। আর কিছু উৎসবেও যাবে এই ছবি।
কেমন ছিল প্রথমবার কলকাতায় কাজের অভিজ্ঞতা?|
ভালো। খুব গোছানো কাজ হয়। অবাক হলাম, এখানেও আমার ভক্ত আছে! খুব ভালো লাগল যে এখানেও আমাকে কিছু দর্শক চেনেন। তাঁরা আমার নাটক দেখেছেন, গান শুনেছেন।
তাহলে সামনে ভারত থেকে কাজের প্রস্তাব পেলে করবেন?
অবশ্যই। দুই দেশের যৌথ প্রযোজনায় যে কাজগুলো হচ্ছে, তার মধ্য থেকে অধিকাংশ সময়ই আমরা ভালো কিছু পাচ্ছি। আমার এই স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবিটিও হচ্ছে যৌথ প্রযোজনায়।
|সুযোগ পেলে কলকাতার কার সঙ্গে কাজ করতে চান?
অঞ্জন দত্তের সঙ্গে। আমি তাঁর খুব ভক্ত। ছোটবেলা থেকে তাঁর গান শুনে বড় হয়েছি। আমি আসলে কলকাতার অভিনেতা-নির্মাতাদের চেয়ে সংগীতশিল্পী আর সাহিত্যিকদের বেশি চিনি। তাঁদের গান শুনে আর লেখা পড়ে বড় হয়েছি।

Leave a Reply

৯৭/৩/খ, উত্তর বিশিল, মিরপুর-১, ঢাকা-১২১৬
মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৪৩৬৭৩, বার্তা বিভাগঃ ০১৭১২-৬৪৪৩৫০
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]

সম্পাদক:
মোঃ সুলতান চিশতী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মহসিন হাসান খান (বুলবুল)

নির্বাহী সম্পাদকঃ
মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

সহকারী সম্পাদকঃ
মোঃ আতোয়ার হোসেন

আইন উপদেষ্টাঃ
শাহিন সরকার


.: Developed By :.
Great IT